এবার ভারত অধিকৃত কাশ্মিরকে নিজেদের মানচিত্রে যুক্ত করলো পাকিস্তান!

সমগ্র কাশ্মীরকে অন্তর্ভুক্ত করে নতুন ম্যাপ প্রকাশ করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। নতুন এই মানচিত্রে ভারতের দখলে থাকা কাশ্মীর ও লাদাখকে যুক্ত করা হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার এক বছরপূর্তির ঠিক আগের দিন এই মানচিত্র প্রকাশ করলো পাকিস্তান।

জিয়ো নিউজ জানিয়েছে, মঙ্গলবার পাকিস্তানের মন্ত্রিসভার বৈঠকে কাশ্মীরকে অন্তর্ভুক্ত করে নতুন মানচিত্রটির অনুমোদন দেয়া হয়। এখন থেকে এটিই পাকিস্তানের মানচিত্র হিসেবে বিবেচিত হবে বলে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানিয়েছেন। ইমরান খান বলেন, এটি পাকিস্তানের ইতিহাসে সবচেয়ে ঐতিহাসিক দিন। এই প্রথমবার ভারত অধিকৃত কাশ্মীরকে পাকিস্তানের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

পাকিস্তানের সব রা’জনৈতিক দলের এতে সায় রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এটি ভারত সরকারের গত বছরে নেয়া সিদ্ধান্তের বিরু’দ্ধেও একটি প্রতি’বাদ। খুব শিগগিরই এটি জাতিসংঘে উত্থা’পন করা হবে। এর প্রতিক্রিয়ায় পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, অভূতপূর্ব সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর মাধ্যমে প্রথমবার বিশ্বের কাছে পাকিস্তানের অবস্থান স্পষ্ট করে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীপরিষদের সম্মতি পাবার পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী এটিই পাকিস্তানের দাপ্তরিক মানচিত্র হিসেবে ব্য’বহৃত হবে। সেইসাথে দেশের সকল বিদ্যালয় ও কলেজেও এটিই পাকিস্তানের মানচিত্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে। কোরেশী আরও বলেন, আমরা মনে করি কাশ্মির সমস্যার সমাধান কোন সামরিক পদক্ষেপে সমাধান হবে না। বরং এই সমস্যার সমাধানের জন্য কাশ্মিরীদেরই এগিয়ে আসতে হবে। জাতিসং’ঘের প্রস্তাব অনুযায়ী কাশ্মিরীরাই ঠিক করে নেবে তারা কী চায়। তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান সবসময় কাশ্মিরের সংগ্রামী জনগণের পাশে থাকবে।

এরআগে, ভারতের কালাপানি, লিমপিয়াধুরা, লিপুলেখ এই তিনটি অংশকে নিজেদের বলে দাবি করে নতুন মানচিত্র প্রকাশ করেছে নেপাল সরকার। নেপালের সঙ্গে ভারতের চলমান বিত’র্কের মধ্যেই এমন পদক্ষেপ নিলো ইসলামাবাদ।-সময়ের কণ্ঠস্বর।