নির্মাণ কাজ শেষ হলো ১৪০ কোটি ডলার ব্যয়ে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ

আলজেরিয়ার আজম মসজিদ। বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ এটি। রমজানে উদ্বোধনের কথা ছিল। মহামা’রি করোনার কারণে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয়নি। উদ্বোধনের আগেই সুউচ্চ মিনারা থেকে প্রথম বারের মতো আজানের সুমধু ধ্বনি ভেসে আসছে।

রাষ্ট্রীয় আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে নব নির্মিত এ মসজিদটি উদ্বোধন করার প্রত্যাশা ছিল তবে উদ্বোধনের আগেই প্রথমবারের মতো এই মসজিদ থেকে আজানের সুমধুর কণ্ঠ শোনা গিয়েছে। পবিত্র রমজান মাসে আলজেরিয়ার এ পবিত্র তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদল আজম উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল।

আলজেরিয়ার সমুদ্র উপকূলে মসজিদুল আজম এর কাজ ২০১২ সালে শুরু হয়। পবিত্র নগরী মক্কার মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববির পর আলজেরিয়ায় নব নির্মিত এ মসজিদটি সবচেয়ে বড়। হারামাইন-আশশারিফাইনের পরে এটি বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মসজিদ। এটিতে নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪০ কোটি ডলার।

একজনজরে মসজিদে তথ্য: নাম : আলজেরিয়া গ্র্যান্ড মসজিদ, আয়তন : ২০ হাজার বর্গমিটার, মিনারের উচ্চতা : ৮৭৪ ফুট, একসঙ্গে নামাজ আদায় : ১ লাখ ২০ হাজার মুসল্লি, লাইব্রেরি : মসজিদ চত্বরে দ্য দাজমা আল দাজাজায়ের নামে ১০ লাখ বই সমৃদ্ধ পাঠাগার থাকবে। ২১ হাজার ৮শ মিটারের এ লাইব্রেরি হলে এক সঙ্গে ২ হাজার লোক বসে বই পড়তে পারবে, গাড়ি পার্কিং : তিন স্তর বিশিষ্ট ১ লাখ ৮০ হাজার বর্গমিটারের আন্ডারগ্র্যাউন্ড গাড়ি পার্কিং-এর ব্যবস্থা রয়েছে।

এতে একসঙ্গে ৬ হাজার গাড়ি রাখা যাবে, হল রুম : ১৬ হাজার বর্গমিটারের দুটি কনফারেন্স হল। একটিতে ১৫০০ এবং অপরটিতে ৩০০ আসন রয়েছে। অনন্য আকর্ষণ : মসজিদটি সৌরবিদ্যুৎ দ্বারা পরিচালিত হবে, নির্মাণ ব্যয় : ১৪০ কোটি ডলার, ডিজাইন : জার্মানের প্রকৌশলী ‘ইউরগান এঙ্গেল’, নির্মাণ তত্ত্বাবধানে : গৃহায়ণ মন্ত্রণালয় আলজেরিয়া।

চলতি বছর রমজানে রাষ্ট্রীয়ভাবে এ মসজিদটি উদ্বোধন করার কথা ছিল। প্রাণঘা’তী বৈশ্বিক মহামা’রিক করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সব মসজিদ বন্ধ থাকায় উদ্বোধন হয়নি নবনির্মিত বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম আলজেরিয়ার এ মসিজদটি। তবে মহামা’রি করোনার প্রাদুর্ভাব কমে আসলে রাষ্ট্রীয় আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমেই উদ্বোধন হবে এ বিশাল মসজিদ। রাষ্ট্রীয় আনুষ্ঠানিকতায় উদ্বোধন হলেও নিয়মিত এ মসজিদে আজান দেয়া শুরু হয়েছে।