থানার সামনে সড়কেই সন্তান প্র’সব, সেবা দিলো পুলিশ

কক্সবাজার সদর মডেল থানা সংল’গ্ন সড়কেই সন্তান প্র’সব করেছেন ‌‘মান’সিক ভারসা’ম্যহীন’ এক তরুণী। মঙ্গলবার বেলা দেড়টার দিকে সন্তান প্র’সবের এ ঘটনা ঘটে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২৫-২৬ বছর বয়সী মানসিক ভারসাম্য’হীন এক নারী প্র’সব বেদনায় কাতরাচ্ছিলেন। কিন্তু কেউ তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়নি। এক পর্যায়ে সন্তান প্র’সব হলে আশেপাশের লোকজন থা’নায় খবর দেয়।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসে সদর মডেল থা’নার পুলিশ। কিন্তু প্র’সূতি ও বাচ্চাটি ধরতে কাউকে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে সদর থা’নার গাড়ি চালক কনস্টেবল চন্দন আর্চায্য সৈকত অন্যান্য সহকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নিজ হাতে প্রসবকালীন সময়ে বাচ্চাটি হাতে তুলে প্র’সূতি মায়ের সেবা দেন। পরে নব’জাতকসহ মাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নারী নেত্রী নাজনীন সরোয়ার কাবেরী বলেন, মেজর সিনহা হ’ত্যাকা’ণ্ড নিয়ে ওসি প্রদীপ, লিয়াকতসহ কিছু পুলিশ সদস্যদের কর্মকা’ণ্ডে ইমেজ সংক’টে পড়েছে বাহিনীটি।

চারদিকে চলছে নানা সমালোচনা। এরই মাঝে একজন মানসিক ভার’সাম্যহীন প্র’সূতির সেবাতেও কিন্তু এগিয়ে এলেন কনস্টেবল সৈকতসহ কিছু পুলিশ সদস্য। প্রজাতন্ত্রের সেবক পুলিশ বাহিনীতে এমন সদস্যরা আছেন বলেই, ওসি প্রদীপদের শত অপ’কর্মের মাঝেও আমরা স্বপ্ন দেখি সমৃদ্ধ আগামীর।

সদর থা’নার ওসি খায়রুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে দ্রুত পুলিশ পাঠানো হয়। সে সময় সহযোগিতার জন্য কোন নারীকে না পাওয়ায় পুলিশ সদস্যরা বিনা সংকো’চে মা ও নব’জাতককে উ’দ্ধার করে চি’কিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়।

সূত্র: ইত্তেফাক