মেসিকে কেনার জন্য ওঁতপেতে আছে বিশ্বসেরা ৭ ক্লাব

দীর্ঘ একযুগেরও বেশি সময় পর এই প্রথম একটি মৌসুম কাটালো বার্সেলোনা কোনো শিরোপা জয় ছাড়া। প্রতিটা মৌসুমেই কিছু না কিছু জয় থাকতোই তাদের। এবার লা লিগা হারিয়েছে তারা রিয়াল মাদ্রিদের কাছে। স্প্যানিশ সুপার কোপা, কোপা ডেল রেও জিততে পারেনি। সর্বশেষ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলের বিশাল ব্যবধানে হেরে মৌসুম শেষ করেছে বার্সেলোনা।বায়ার্ন লজ্জার পর বার্সায় বিশাল পরিবর্তন হবে- এটা অবধারিতই।

যার শুরুটা হলো কোচ সিসে সেতিয়েনকে দিয়ে। এরপর বিদায় করা হলো ফুটবল ডিরেক্টর এরিক আবিদালকে। দলটাকেও পুরোপুরি ঢেলে সাজানো হবে। কিন্তু মেসি এখনও অনিশ্চিত। তিনি কোনোভাবেই যেন আর ন্যু ক্যাম্পে মন বসাতে পারছেন না। নুতন কোচকেও তাই নিজের এই মানসিক অবস্থার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। অর্থ্যাৎ, মেসি নিজেই বার্সা ছাড়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে এখনও। নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যানকেও লিওনেল মেসি জানিয়ে দিয়েছে, ‘বার্সায় আমি ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছি না।’ অর্থ্যাৎ কোচের পরিবর্তনেও খুশি নন লিওনেল মেসি।

বার্সায় যে পরিবর্তনের ঢেউ লেগেছে, তাতেও সন্তুষ্ট নন তিনি। তাহলে কিসে সন্তুষ্ট হবেন মেসি? আপাতত কেউ জানে না। এসবের মধ্যেই মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার গুঞ্জন রয়েছে ইউরোপের ফুটবলে দলবদলের বাজারে। এমনিতেই বার্সার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন না করে নিজের ক্লাব ছাড়ার ইঙ্গিত আগেই দিয়ে রেখেছিলেন মেসি। এবার সেটা যেন আরও পাকাপোক্ত হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে মেসি কোথায় যাবেন? কোন ক্লাব তাকে নেবে? এগুলোও এখন অনেক বড় প্রশ্ন। কারণ, বার্সেলোনা মেসির রিলিজ ক্লজ নির্ধারণ করে রেখেছে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব ম্যানসিটি রাজি মেসির এই রিলিজ ক্লজ পুরোপুরি পরিশোধ করে তাকে কিনে নেবে। ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলানও প্রস্তুত মেসিকে কেনার জন্য। সেই ৭ ক্লাবের নাম হল-ঃ ম্যানসিটি, ইন্টার মিলান, পিএসজি, ইন্টার মিয়ামি, বায়ার্ন মিউনিখ, জুভেন্টাস, নিওয়েলস ওল্ড বয়েজ।