একটা পথই খোলা, বার্সা সভাপতির পদত্যাগ

বার্সেলোনা ছাড়ছেন আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি। একটি বিশেষ বার্তায় এই ৩৩ বছর বয়সী অনুরোধ জানিয়েছেন দ্রুত তাকে ফ্রি ট্রান্সফারে ছেড়ে দিতে। তবে বার্সেলোনার বোর্ড আরো একবার বসতে চায়, তারা মেসিকে ক্লাবে রাখতে চায়। কিন্তু সেজন্য একটা পথই খোলা, বার্সেলোনার বর্তমান প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তেমোর পদত্যাগ। কিন্তু মেসি তার সিদ্ধান্তে অনড় থাকছেন বলেই মনে করেন স্প্যানিশ ফুটবল লেখক গিলেম বালাগ।

মেসি বার্সা ছাড়ছেন। কিংবা মেসিকে কিনতে টাকার বস্তা নিয়ে বসে আছে উরোপের নামিদামি ক্লাবগুলো। ২০০৪ সাল থেকে এই খবরটি গণমাধ্যমে শুধু মুখরোচক সংবাদই হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে পরিণত হয়নি কোনোদিন। এমনকি মেসিকে কিনতে ব্লাঙ্ক চেক দিয়েছিলেন কাতারের বেশ কয়েকজন ধনকুবের । কিন্ত টাকার কাছে মেসির মন গলেনি এতটুকু। জীবনের সবচেয়ে প্রিয় ক্লাব মেসি ছাড়বেন কি করে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পরিবর্তন হয়েছে মেসির মন। আনুষ্ঠানিক ভাবে মেসি বার্সেলোনাকে চিঠি দিয়েছেন। বিষয়বস্তু মেসি বার্সা ছাড়তে চান। বড় বড় গণমাধ্যমগুলো এমন খবর নিশ্চিত করেছে।

১০ দিন আগে বার্সেলোনা, ইউরোপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের সাথে ৮-২ ব্যবধানে একটি ম্যাচ হারে, যেই ম্যাচে খেলেছেন লিওনেল মেসি। এই ম্যাচটির পরপরই দ্রুত কোচ বদল করে বার্সেলোনা। কুইক সেতিয়েনের জায়গায় নিয়ে আসা হয় রোনাল্ড কোম্যানকে। লিওনেল মেসি ছয়বার ব্যালন ডি’ অর জিতেছেন। কাতালান ক্লাব বার্সলোনার সাথে মেসির চুক্তি আছে ২০২১ সাল পর্যন্ত, মেসির ‘বাই আউট ক্লজ’ ৭০০ মিলিয়ন ইউরো। বাই আউট ক্লজ হচ্ছে চুক্তির মেয়ার থাকাকালীন একটি ট্রান্সফারের ভিত্তি মূল্য।

মেসির চুক্তিতে একটি ধারা আছে যেখানে বলা আছে যদি তিনি চান তবে তাকে ফ্রিতে ছেড়ে দেয়া হবে, তবে সেটা ১০ই জুনের মধ্যে জানানো প্রয়োজন। সেই তারিখ পার হয়ে গেছে এখন, কিন্তু মেসি ও তাঁর সহযোগীরা মনে করেন করোনাভাই’রাসের কারণে যেহেতু পুরো মৌসুমই পিছিয়েছে তাই ধারায় উল্লেখিত এই তারিখও বদল হওয়া দরকার। গতকাল এই ঘোষণা আসার পরপরই বার্সেলোনার মাঠ ন্যু কাম্পে জড়ো হয় বার্সেলোনার ভক্তরা। বোর্ডের বিরু’দ্ধে স্লো’গান দেন তারা।

লিওনেল মেসি ক্লাবটির ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতা। ২০০৯ ও ২০১১ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে গোল আছে মেসির।