মেসি থাকো, বার্তেম্যু পদত্যাগ করো, রাস্তায় নেমেছে ভক্তরা

এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসেনি, তবে সিদ্ধান্ত একপ্রকার চূড়ান্তই বলা চলে। মঙ্গলবার এক ফ্যাক্সবার্তার মাধ্যমে ক্লাব ছাড়ার কথা বার্সেলোনা টিম ডিরেক্টরদের জানিয়ে দিয়েছেন দলের সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসি। স্প্যানিশ ক্লাবটির পক্ষ থেকেই নিশ্চিত করা হয়েছে এ তথ্য।

বার্সেলোনা ছেড়ে নতুন কোন ক্লাবে যাবেন মেসি?- তা এখনও নিশ্চিত নয়। তবে তাকে নেয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে তিনটি দল; ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি, ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলান ও ফ্রেঞ্চ ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই। শেষপর্যন্ত কোন ক্লাবে যাবেন মেসি, তা সময়ই বলে দেবে।

তবে মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার খবর মানতে পারেননি ক্লাবটির ভক্ত-সমর্থকরা। মঙ্গলবার মেসির সংবাদ সম্মেলনের পর থেকেই ক্লাবের স্টেডিয়াম ন্যু ক্যাম্পের বাইরে এসে প্রতি’বাদ জানিয়েছেন তারা। তখন তাদের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ড ও মাফলারে লেখা ছিল, ‘মেসি থাকো, বার্তেম্যু পদত্যাগ করো।’

বেশিক্ষণ অবশ্য ন্যু ক্যাম্পের বাইরে প্রতি’বাদ করতে পারেননি সমর্থকরা। কিছুক্ষণ পরই পুলিশ এসে তাদের সরিয়ে দিয়েছে। মূলত করোনাভা’ইরাস সতর্কতার কারণেই এক জায়গায় বেশি মানুষকে জড়ো হতে দেয়নি পুলিশ। তবু তার আগেই মেসির প্রতি নিজেদের সমর্থন জানিয়ে গেছেন ক্লাবটির ভক্তরা।

উল্লেখ্য, বার্সেলোনার বর্তমান ক্লাব প্রেসিডেন্ট জোসেফ মারিয়া বার্তেম্যু। মেসির ক্লাব ছাড়ার পেছনে অন্যতম প্রধান কারণ বার্তেম্যু ও তার ক্লাব পরিচালকদের স্বেচ্ছাচারিতা ও অত্যধিক ব্যবসায়িক মনোভাব। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, বার্তেম্যু পদত্যাগ না করার কারণেই মূলত মেসি ক্লাব ছাড়ার জন্য এমন তাড়াহুড়ো দেখাচ্ছেন।

এদিকে মেসির প্রতি নিজের সমর্থন জানিয়েছেন বার্সেলোনার সাবেক অধিনায়ক কার্লোস পুয়োলও। মেসির সাবেক সতীর্থ কার্লোস পুয়োল টুইটে লিখেছেন, ‘লিও, তোমার প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান। সব সময়ই সমর্থন থাকবে, বন্ধু!’ পুয়োলের টুইটের রিপ্লাইয়ে হাততালির ইমোজি দিয়েছেন মেসির বর্তমান সতীর্থ লুইস সুয়ারেজ।