ঘুষের টাকা ফেরত দিতে আসা’মিদের পরিবারের পেছনে ঘুরছেন সেই এসআই

গত ৭ আগস্ট এক স্কুলছাত্রীকে অপ’হরণের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় মা’মলা হয়। মা’মলার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স’ন্দেহভাজন অটোরিকশাচালক রকিব, আবদুল্লাহ্ ও নৌকার মাঝি খলিলকে গ্রে’ফতার করে রিমা’ন্ডে নেয় মা’মলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শামীম আল মামুন।

কা’রাগারে বন্দি থাকা ওই তিন আ’সামির পরিবারের স্বজনদের অভিযোগ, নিখোঁজ স্কুলছাত্রীকে ধর্ষ’ণের পর হ’ত্যা করে শীতলক্ষ্যা নদীতে ভা’সিয়ে দেয়া হয়েছে। আদা’লতে এ স্বীকা’রোক্তি না দিলে তিনজনকে (তিন আ’সামি) গু’লি করে হ’ত্যা করা হবে। এমন ভয়’ভীতি দেখিয়ে তিনজনকে দিয়ে আ’দালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি করিয়েছেন ওই এসআই।

তারা আরো অভিযোগ করেন, তাদের কাছ থেকে ৪৭ হাজার টাকা ঘুষ নিয়ে কথা রাখেননি এসআই শামীম। তিনজনকে নির্যা’তন করে গু’লি করে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি আদায় করিয়েই ছেড়েছেন। এখন ওই স্কুলছাত্রী জী’বিত ফিরে আসার পর এসআই শামীম ঘুষের টাকা ফেরত দিতে তাদের পেছনে ঘুরছেন।

গত রোববার সন্ধ্যায় স্কুলছাত্রীটি ফিরে আসার পর ঘটনা মোড় নেয় অন্যদিকে। পুলিশের তদন্ত নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন। এরইমধ্যে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে ওই এসআইকে মাম’লার তদন্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। বুধবার বিকেলে জেলা এসপির নির্দেশ তাকে প্রত্যা’হার করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে।-ডেইলি বাংলাদেশ