আরো ৪৫ মৃ’ত্যু, কমছে শনাক্তের হার

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাই’রাসে আক্রা’ন্ত হয়ে আরো ৪৫ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪ হাজার ১২৭ জনে। একদিনে নতুন শনাক্ত হয়েছে দুই হাজার ৪৩৬ জন। এ নিয়ে মোট আক্রা’ন্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৪ হাজার ৫৮৩ জন হল। বৃহস্পতিবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাই’রাস পরিস্থিতির সবশেষ এ তথ্য জানানো হয়।

আইইডিসিআরের হিসাবে একদিনে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎ’সাধীন আরো তিন হাজার ২৭৫ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে এক লাখ ৯৩ হাজার ৪৫৮ জন হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৯২টি ল্যাবে ১৫ হাজার ১২৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ১৫ লাখ ৩৮৫টি নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ১১ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৩০ শতাংশ । শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৬৩ দশমিক ৫২ শতাংশ এবং মৃ’ত্যুর হার ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ। গত তিন মাসে এটি সর্বনিম্ন শনাক্ত। এর আগে ২০ মে শনাক্তের হার ছিল ১৫ দশমিক ৮৪। গত কয়েক দিন ধরেই সংক্র’মণ শনাক্তের হার কমছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মা’রা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ৩৪ জন, নারী ১১ জন। তাদের মধ্যে ৪২ জন হাসপাতালে এবং ৩ জন বাড়িতে মা’রা গেছেন।

তাদের মধ্যে ২৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ১১ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৭ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ১ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ছিল। ২২ জন ঢাকা বিভাগের, ১০ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১ জন রাজশাহী বিভাগের, ৫ জন খুলনা বিভাগের, ১ জন সিলেট বিভাগের এবং ৬ জন রংপুর বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

দেশে এ পর্যন্ত মা’রা যাওয়া ৪ হাজার ১২৭ জনের মধ্যে ৩ হাজার ২৪২ জনই পুরুষ এবং ৮৮৫ জন নারী। বাংলাদেশে করোনাভাই’রাসের প্রথম সংক্র’মণ ধরা পড়ে ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃ’ত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।