‘মেসিকে কেনার খরচ জার্সি বিক্রি করলেই উঠে যাবে’

ছবি : এএফপি

বার্সেলোনা ছাড়ার পর লিওনেল মেসির সম্ভাব্য গন্তব্য নিয়ে জল্পনা চলছেই। তিন লিগের তিন শীর্ষ ক্লাব ইন্টার মিলান, ম্যাঞ্চেস্টার সিটি এবং পিএসজির মাঝে পেপ গার্দিওলার দলই এই দৌড়ে এগিয়ে আছে। কিন্তু বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলারকে পেতে ২২ কোটি ইউরো খরচ করতে হতে পারে ম্যানচেস্টার সিটিকে। এই বিপুল পরিমাণ অর্থের ঘাটতি পূরণ করা কঠিন, কিন্তু অসম্ভব নয়।

আছে সহজ রাস্তা। এই পথ দেখিয়েছেন সিটির সাবেক ইংলিশ ডিফেন্ডার ড্যানি মিলস।মেসিকে কেনার অর্থের ধাক্কা সামলানোর উপায় নিয়ে মিলস বলেছেন, ‘আমি মনে করি না অর্থ কোনো বড় সমস্যা হবে। আমি দেখেছি, ২০১৬ সালে তার ২০ লাখ জার্সি বিক্রি হয়েছিল। যদি একটি জার্সি থেকে ৪০ পাউন্ডও লাভ করা যায়, তাহলে প্রতি সপ্তাহে ১৫ লাখ পাউন্ড আয় হবে। এভাবে তার পারিশ্রমিক দেওয়া যাবে।

প্রতিবছর যদি তাকে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ড দিতে হয়, তাহলে জার্সি বিক্রির অর্থ দিয়েই তার পারিশ্রমিক মেটানো সম্ভব। বরং আগের চেয়ে বিক্রি বেশিও হতে পারে।’ এটা ঠিক যে, মেসির দলবদল মানেই জার্সির চাহিদা আকাশ ছুয়ে যাবে। নেইমার বার্সা থেকে পিএসজিতে যাওয়ার পরেও এমন ঘটনা ঘটেছিল। তবে মেসির ক্ষেত্রে তা বহুগুণ বেড়ে যাবে। শোনা যাচ্ছে, বার্সেলোনায় ইস্তফা দিয়ে সিটিতে যাওয়ার ব্যাপারে গুরু পেপ গার্দিওলার সঙ্গে বেশ কয়েকবার ফোনালাপ করে ফেলেছেন মেসি।

তার বাবাও নাকি এখন ইংল্যান্ডে আছেন দলবদলের ব্যাপারে আলাপ করতে। মেসি শেষ পর্যন্ত কোথায় যাবেন, সেটি জানতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।-কালের কণ্ঠ অনলাইন।