সুইডেনে কোরান পোড়া’নোর প্রতি’বাদে সহিং’স বি’ক্ষোভ

সুইডেনের তৃতীয় বৃহত্তম শহর মালমোতে কোরান পোড়া’নোর ঘটনার জেরে শহরের ক্ষু’ব্ধ মুসলিমরা সহিং’স বিক্ষো’ভ করেছে। রাতে এই বিক্ষো’ভের সময় কিছু তরুণ গাড়িতে আ’গুন দেয় এবং পুলিশের দিকে ইট পাটকেল ছোঁড়ে।

পুলিশ জানায় প্রায় ৩ শ’র বেশি তরুণ বিক্ষো’ভে অংশ নেয়। তাদের মধ্যে ২০ জনকে আট’ক করা হয়েছে। মালমোর অভিবাসী অধ্যুষিত রোজেনগার্ড শহরতলীতে কোরান পোড়া’নোর এই ঘটনা ঘটে।

ডেনমার্কের কট্টর দক্ষিণপ’ন্থী রাজনীতিক রাসমুস পালাদুন কোরান পোড়ানোর ঐ ঘটনায় অংশ নিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু সুইডিশ পুলিশ তাকে ঢুকতে দেয়নি। তবে তার সমর্থকরা এরপরও কোরান পো’ড়ানোর এই ঘটনায় অংশ নেয়।

রাসমুস পালাদুন ক’ট্টর দক্ষিণপন্থী স্ট্রাম কুর্স দলের নেতা। ডেনমার্কে বর্ণ’বাদ এবং অন্যান্য অপ’রাধে তাকে এক মাসের জেল দেয়া হয়েছিল। তার দলের সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলে ইসলাম বিরো’ধী ভি’ডিও পো’স্ট করার অভিযো’গে তার সাজা হয়।

সুইডেনের মালমোতে বসবাস করেন বাংলাদেশী সাংবাদিক তাসনীম খলিল। তার সঙ্গে কথা বলেন বিবিসি বাংলার সাংবাদিক শাকিল আনোয়ার। তাসনীম খলিল জানান, রাসমুস পালাদুনের অনুসারীরাই কোরান পুড়ি’য়েছে বলে ধারণা করা যায়।

তিনি জানান,একটি সাইকেল চালানোর রাস্তায় গো’পনে এরা কোরান পুড়ি’য়েছে। এই ঘটনাটি তারা নিজেরাই ভি’ডিও করেছে। এরপর তারা এটি একটি ওয়েবসাইটে আপলো’ড করেছে। পুলিশ এ পর্যন্ত তিনজনকে গ্রে’ফতার করেছে।

তিনি বলেন, যারা এই কাজ করেছে, তারা এজন্যে একটি হাস্যকর যুক্তি দিচ্ছে। তারা বলছে, মতপ্রকাশের স্বাধীনতার জন্য তারা এই কাজ করছে। অথচ সুইডেনের আ’ইন অনুযায়ী এটা বেআই’নি, কারণ এর মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট ধর্মের মানুষের প্রতি ঘৃ’ণার প্রকাশ ঘটানো হচ্ছে।

সূত্র: বিবিসি