আইফোন-১২ এর দাম কমানোর চেষ্টা করছে অ্যাপল

আইফোন-১২ এর কিছু যন্ত্রাংশ কমিয়ে ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ দাম কমানোর চেষ্টা করছে অ্যাপল কোম্পানি। মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস এ খবর প্রকাশ করেছে। আগামী ১২ অক্টোবর আইফোনের নতুন এই ভার্সনটি বাজারে নিয়ে আসা কথা রয়েছে।

সম্প্রতি অ্যাপলের ফাইভ-জি ‘আইফোন ১২’-এর দামের ভারসাম্য রাখতে কিছু যন্ত্রাংশ কমিয়ে ফেলার চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে। বিশেষ করে ফোনটির ব্যাটারি বোর্ড পরিবর্তন করে যদি কম দামি হাইব্রিড বোর্ড ব্যবহার করা হয় তাহলে দাম কমানো সম্ভব হবে।

অ্যাপল বিশ্লেষক মিং শি কুয়ো বলেন, ফাইভ-জি এর কারণে আইফোন ১২-এর দাম প্রায় ৭৫ থেকে ৮৫ ডলার বেড়ে যাচ্ছে। এই বর্ধিত খরচের সঙ্গে দামের ভারসাম্য রাখতে অন্য কিছু যন্ত্রাংশ কমানো হচ্ছে।

ত’থ্য ফাঁ’স হল আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্সের

আইফোন প্রেমীরা সবসময়ই অ্যাপলের আইফোনের নতুন ভার্সনের অপেক্ষায় থাকেন। দিনগুণতে থাকেন কখন বের হবে আইফোন। বের হলেই হুমড়ি খেয়ে পড়েন তারা। সম্প্রতি বাজারে আসার আগেই আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স মডেলর ত’থ্য অনলাইনে ফাঁ’স হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

গত বছরই অ্যাপল ঘোষণা দেয় নতুন আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্সের। তবে করোনার হানায় যথাসময়ে বাজারে আসেনি আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স। এরই মধ্যে জানা গেল এই ফোনের ত’থ্য ফাঁ’স হওয়ার খবর। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে নতুন আইফোন নিয়ে নানা ত’থ্য দেওয়া হচ্ছে। নতুন আইফোন নিয়ে সম্প্রতি জন প্রসের নামে এক ইউটিউবার বেশ কিছু স্ক্রিনশট ফাঁ’স করেন। এতে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের সঙ্গে নতুন মডেলের আইফোনের তুলনা করা হয়েছে।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাপল সাধারণত নতুন আইফোন উদ্বোধনের অনুষ্ঠান সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজন করে। তবে আইফোন ১২ সিরিজের অনুষ্ঠান এবারে করোনাভাই’রাস পরিস্থিতির কারণে কিছুটা দেরিতে আয়োজন করতে পারে। সম্প্রতি টুইটারে একটি অ্যাকা’উন্ট থেকে আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্সের ফিচার সম্পর্কে বিস্তারিত ত’থ্য দিয়ে বলা হয়েছে, এবারের আইফোনে যে ব্যাটারি যুক্ত করা হচ্ছে তাতে দীর্ঘসময় চার্জ থাকবে। নতুন আইফোনের মডেলটি হবে ৬.৭ ইঞ্চি ওএলইডি ডিসপ্লের। আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সে ছিল ৫.৮ ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লে। এছাড়া নতুন মডেলের আইফোনের ডিসপ্লে রেজুলেশন আগের সংস্ক’রণের চেয়ে বেশি হবে।

ডিসপ্লে ছাড়াও নতুন আইফোনে এ১৪ বায়োনিক চিপসেট থাকবে যাতে যুক্ত হবে চতুর্থ প্রজন্মের নিউরাল ইঞ্জিন। এতে তিনটি ক্যামেরা সেটআপ থাকবে। এর প্রাথমিক সেন্সর ১৬ মেগাপিক্সেলের সঙ্গে আলট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা ও টেলিফটো ক্যামেরা থাকছে। এতে আইপ্যাড প্রো মডেলের মতো আলাদা করে লিডার সেন্সর থাকবে যাতে নতুন অগমেন্টেড রিয়্যালিটি সুবিধা সমর্থন করবে। আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্সে যে ব্যাটারি সুবিধা থাকবে তাতে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের তুলনায় দুই ঘন্টা বেশি চার্জ থাকবে।

এই ফোনে ফোরকে মানের ভি’ডিও ধারণ করা যাবে। এর ফেডআইডি সুবিধাও উন্নত হবে। অ্যাপলের পক্ষ থেকে নতুন আইফোন ঘিরে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কিছু বলা হয়নি। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিশ্বের অনেক কিছু বদলে দিয়েছে। অ্যাপলের নতুন আইফোন প্রতিবছর যে সময় ঘোষণা দেওয়া হয়, এবার তা আর হচ্ছে না। অ্যাপলের পক্ষ থেকে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে।

গু’ঞ্জন উঠেছে, সেপ্টেম্বরের বদলে এবার এক মাস পিছিয়ে নতুন আইফোনের ঘোষণা দেবে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। সেই তারিখ হতে পারে ১২ অক্টোবর। অর্থাৎ, ১২ অক্টোবরে আসতে পারে আইফোন ১২। বার্তা সংস্থা সিএনএনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, নতুন আইফোনে ক্রেতাদের আকর্ষণ করার মতো বেশ কিছু ফিচার থাকছে। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ফিচার হচ্ছে ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক সমর্থন। এ কারণে অনেকেই নতুন আইফোন হালনাগাদ করবেন।

বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, নতুন আইফোনের সবচেয়ে বড় চমক থাকবে ক্যামেরায়। অ্যাপলের আইফোন ১২ সিরিজে উচ্চমানসম্পন্ন সেমকো ও সানি অপটিক্যাল লেন্স ব্যবহার করা হচ্ছে। আর ও তথ্য প্রকাশ করেছেন অ্যাপল পণ্য সম্পর্কে সফল পূর্বাভাস দেওয়ার জন্য বিখ্যাত হয়ে ওঠা বিশ্লেষক মিং-সি কুয়ো। তিনি বলেছেন, নতুন লেন্সের কারণে ফোনের ক্যামেরা পারফরম্যান্স আরও উন্নত হবে এবং অটোফোকাস সুবিধা বাড়বে।

সেমকো মূলত কোরিয়ার কোম্পানি আর সানি অপটিক্যালের প্রধান কার্যালয় চীনে। এ দুটি প্রতিষ্ঠানই সেরা লেন্স সরবরাহকারী হিসেবে পরিচিত। অ্যাপল নতুন আইফোন নিয়ে আগেভাগে কোনো তথ্য প্রকাশ করে না। তাই নতুন আইফোন ঘিরে বরাবরই নতুন পূর্বাভাস ও গু’ঞ্জন চলতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এসব গুঞ্জনের মিল পাওয়া যায়।

এছাড়া করোনা পরিস্থিতির কারণে অন্য মোবাইল ফোনের সঙ্গে টক্কর দিতে এবারের নতুন আইফোনের দাম কম হতে পারে বলে গু’ঞ্জন রয়েছে। গত মে মাসে নতুন আইফোনের দামের ত’থ্য ফাঁ’স করেছেন তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্লেষক জন প্রসের। তার দাবি, আইফোন ১২ মডেল ৬৪৯ মার্কিন ডলারে পাওয়া যাবে। নতুন আইফোন সংস্কর’ণভেদে ৬৪৯ মার্কিন ডলার থেকে ১ হাজার ৯৯ ডলারে কিনতে পারবেন গ্রাহক। অর্থাৎ, বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি মোকাবিলায় আইফোনের দাম কমিয়ে দিচ্ছে অ্যাপল।