আ’ইনি লড়াইয়ে গেলে জিতে যাবেন মেসি!

রিলিজ ক্লজ ছাড়াই বার্সেলোনা ছাড়তে চান লিওনেল মেসি। অন্যদিকে বার্সার দাবি, ১০ জুনের আগে না জানানোয় এটা এখন আর সম্ভব না। এমতাবস্থায় বার্সা-মেসি দ্ব’ন্দ্ব গড়াতে পারে আই’ন লড়াই পর্যন্ত। তবে এ লড়াইয়ে আর্জেন্টাইন তারকারই জয় দেখছেন স্পেনের লা রিওহার ল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হুয়ান রামোন লিয়েবানা।

বার্সেলোনায় আর নয়, সেটা গত মঙ্গলবারই স্প’ষ্ট জানিয়ে দেন মেসি। বাধা দিচ্ছে না কাতালান ক্লাবটিও। তবে তাদের দাবি, ২০২০-২১ মৌসুম শুরু হওয়ায় এখন মেসিকে নিতে চাইলে নতুন ক্লাবকে গুনতে হবে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো। অন্যথায় ছাড়পত্র দেওয়া হবে না আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে।

অন্যদিকে মেসির আই’নজীবীদের দাবি, করোনার কারণে ২০১৯-২০ মৌসুম শেষ হতে বিল’ম্ব হয়েছে। তাই ক্লাব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ার সময় আছে চলতি মাসের ৩১ তারিখ (আজ) পর্যন্ত। বার্সার অভিযোগের প্রেক্ষিতে লিয়েবানা বলেন, ‘১০ জুনের বিষয়টি ছিল ট্রান্সফারের। তবে চুক্তি বাতিল সং’ক্রান্ত কিছু না। নির্দিষ্টভাবে চুক্তির তারিখের হিসেব করলে বার্সা এগিয়ে থাকবে। অন্যথায় মেসির জেতার জন্য অনেক কারণ দাঁড়িয়ে যাবে।’

‘২৩ আগ’স্ট চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল হয়েছে। মেসির আইনজীবীরা বিষয়টা বলতেই পারেন। তাই তারা চুক্তি সমাপ্তির সময়কাল একচেটিয়াভাবে ব্যবহার করতে পারবে।’ যোগ করেন লিয়েবানা। এর আগে মেসির ট্রান্সফার ফির মেয়াদ শেষ হওয়া নিয়ে স্পেনের সংবাদমাধ্যম কাদেনা সেরের সাংবাদিক সিকে রদ্রিগেজ জানান, ‘২০১৭ সালে মেসির সাথে তিন বছরের চুক্তি নবায়ন করে বার্সা। সেই সময়ে বার্সা ছাড়লে নতুন ক্লাবকে রিলিজ ক্লজের ৭০০ মিলিয়ন ইউরো পরিশোধ করতে হতো। কিন্তু তিন বছর শেষ হয়ে যাওয়ায় এখন আর সে হিসেব নেই।’

রদ্রিগেজের সাথে সহমত প্রকাশ করে টুইট করেন স্পেনের নামকরা সাংবাদিক গিলেম বালেগ। তিনি লেখেন, ‘কাহিনী অন্যদিকে ঘুরে গেল। তিন বছর শেষ হওয়ায় ২০২০-২১ মৌসুমের জন্য ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর রিলিজ ক্লজটি নেই। সদ্য সমাপ্ত মৌসুমেই তা শেষ হয়ে গেছে। এটা বার্সা বোর্ডের মাথায় ছিল না।’