‘ক্রিকেটের ভালোর জন্য ভারত ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া থেকে আইসিসির সভাপতি নির্বাচিত করা যাবে না’

বিশ্ব ক্রিকেটের শাসক সংস্থা আইসিসির গভর্নিং বডি তাদের নতুন সভাপতি নির্বাচনে এখন পর্যন্ত ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারেনি। বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানের ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান এহসান মানি বললেন, নতুন সভাপতি ক্রিকেটের তিন মোড়ল তথা ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বাইরে হওয়া উচিত।

শশাঙ্ক মনোহরের মেয়াদ শেষ হয়েছে অনেক দিন হয়ে গেলেও সভাপতি নির্বাচনে এখনো তার উত্তরসূরি খুঁজে নিতে পারেনি আইসিসি। বিশ্ব ক্রিকেট সংস্থার প্রধানের চেয়ারে ঘুরে ফিরে আসছে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ সংস্থা সৌরভ গাঙ্গুলির নাম। শোনা যাচ্ছে আইসিসি সভাপতি পদে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান কলিন গ্রেভস, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে ও ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডেভ ক্যামেরনের নামও।

কিন্তু পিসিবি প্রধান এহসান মানির মতে, যেহেতু অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও ইংল্যান্ড বোর্ড মিলে ক্রিকেটে আগে রাজনীতি ঢুকিয়েছে তাই ক্রিকেটের ভালোর জন্য দেশ তিনটি থেকে নতুন সভাপতি নির্বাচন করা উচিত হবে না।  ভারতের শশাঙ্ক মনোহরের বিদায়ের পর গত জুলাই থেকে আইসিসির সভাপতির পদটি পড়ে রয়েছে শূন্য। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইমরান খাজা। দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগ’রিষ্ঠ ভোটে না সাধারণ সংখ্যাগ’রিষ্ঠ ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন, সে ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি আইসিসির বোর্ড।

সভাপতি নির্বাচনে এত সময় লাগার ব্যাপারটিকে ‘দু’র্ভাগ্যজনক’ বলে উল্লেখ করেছেন মানি। তিনি বলেন,এত সময় নেওয়াটা দু’র্ভাগ্যজনক। নিজেদের স্বার্থ রক্ষার জন্য অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও ভারত ২০১৪ সালে রাজনীতি টেনে এনেছে। এখন তারা সেখান থেকে বের হওয়ার লড়াই করছে। কেননা এটা একটুও তাদের স্বার্থ হাসিল করেনি। – ক্রিকইনফো, জি নিউজ, আমাদের সময়।