বিশ্বের সেরা ১০ স্টাইলিশ ক্রিকেটার

শুধুমাত্র মাঠের পারফরম্যান্স দিয়ে একজন ক্রিকেটারকে বিচার করার দিন ও বোধহয় শেষ হয়ে আসছে। বিশ্বে যেসকল খেলা রয়েছে তার মধ্যে ক্রিকেট অন্যতম। বিশেষ করে আমাদের এ ভারতীয় উপদেশে তো বলতে গেলে ক্রিকেট খেলার কোন জুড়ি ই নেই। যখনই নিজ দেশের বা নিজ প্রিয় দলের খেলা থাকে তখন তো আর এক অন্যরকম উন্মাদনা ছাড়া আর কোন কথাই নেই।

বর্তমানে ক্রিকেট শুধু এখন একটি খেলাই নয়। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং এর গন্ডি পেরিয়ে ক্রিকেট এখন বড়সড় এক ‘বাণিজ্যিক’ ক্ষেত্রও বটে। বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপনের জগতেও তাই ক্রিকেটারদের আজকাল খুব কদর। শুধু মাত্র মাঠের পারফরম্যান্স দিয়ে একজন ক্রিকেটারকে বিচার করার দিন ও বোধহয় শেষ হয়ে আসছে।

আজ পাঠকদের উদ্দেশ্যে সেরা ১০ স্টাইলিশ ও সুদর্শন খেলোয়ারদের একটা তালিকা দেয়া চেষ্টা করেছি। দেখে নেয়া যাক তাদের তালিকা:

১০. অ্যাডাম গিলক্রিস্ট: অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। সর্বকালের সেরা উইকেটকিপার হিসেবে তিনি পরিচিত। তবে উইকেটকিপার হিসেবে তিনি যতটা ভাল ছিলেন ব্যাটসম্যান হিসেবেও তিনি ছিলেন ততটাই বিষ্ফোরক ছিলেন। সর্বকালের সেরা টেস্ট ও ওয়ানডে দলেও সবসময়ই তাকে রাখা হয়।

পুরো কেরিয়ারে তার আক্রমণাত্মক ব্যাটিং ও দুর্দান্ত উইকেটকিপিং দ্বারা অসংখ্য ভক্ত তৈরি করেন। তবে শুধু খেলা দিয়ে নয়, ৬ ফুটের এই অজি ক্রিকেটারটির ফ্যান রয়েছে তার লুকস এর জন্য৷

০৯. অ্যালিস্টার কুক: হ্যান্ডসাম ক্রিকেটারের তালিকায় অ্যালিস্টার কুকের নামটা অবশ্যই থাকবে৷ কুকের ‘লুকস অ্যান্ড স্টাইল’ শুধুমাত্র ক্রিকেট প্রেমীরাই নয়, ভালোবাসবে ক্রিকেটের বাইরের জগতের মানুষরাও৷ ২০০৬ সালে ভারতের বিরুদ্ধে অভিষেক ঘটে তার৷ তারপর তিনি হয়ে ওঠেন ইংলান্ড দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷ শুধু দেখার দিক দিয়েই নয়, মানুষ হিসেবেও কুকের তুলনা হয় না৷ ইংল্যান্ড দলের অধিনায়কের ভাবমূর্তিও বেশ পরিস্কার।

০৮. রাহুল দ্রাবিড়: ভারতের এই প্রাক্তন ক্রিকেটার বেশ বিখ্যাত ছিল ব্যাটসম্যান হিসেবে৷ তার ঘরানার ব্যাটসম্যান এখন খুব একটা দেখা যায় না৷ তবে ব্যাটসম্যান দ্রবিড়ের পাশাপাশি, তিনি ভারতীয় নারীকুলের মধ্যে বিখ্যাত ছিলেন হ্যান্ডসাম হিসেবে৷ মাসলম্যান না হলেও মাঠ এবং মাঠের বাইরে তিনি আকর্ষণীয় ছিলেন৷

০৭. মাইকেল ক্লার্ক: ২০০৪ সালে ভারতের বিরুদ্ধে খেলার সময় মাইকেল ক্লার্কের বয়স বেশ কমই ছিল৷ তখন তাকে এতটা ‘কিউট’ দেখতে ছিল, মনেই হত না তিনি কোন ক্রিকেট খেলোয়াড়৷ ক্রিকেটে যখন বড় চেহারার ক্রিস গেইল ও ম্যাথু হেডেন দাপটের সঙ্গে খেলছেন, ক্লার্ক তখন ছিলেন একটু অন্যরকম৷ ক্রিকেট ব্যাটের পাশাপশি, নিজের রূপ দিয়েও অনেক ফ্যান বানিয়েছিলেন ক্লার্ক৷

০৬. মহেন্দ্র সিং ধোনি: হ্যান্ডসাম ক্রিকেটারের তালিকায় মহেন্দ্র সিং ধোনির নাম দ্বিতীয় নম্বরে৷ ২০০৬ সালে পাকিস্তান সফরের তার চুলের প্রশংসা করেন স্বয়ং পাক প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশারফ৷ এরপর দশ বছর কেটে গিয়েছে৷ তার স্টাইল এখনও নকল করে দেশের অধিকাংশ তরুণ৷ গোটা দেশের কাছে তিনি এখন একটা ব্র্যান্ড৷

০৫. এবি ডি ভেলিয়ার্স: হ্যান্ডসাম ক্রিকেটারের তালিকায় এবি ডি ভেলিয়ার্সের নাম পাঁচ নম্বরে৷ ব্যাট হাতে বিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করার পাশাপাশি, নিজের স্টাইল দিয়ে মহিলা মহলে নাম কিনেছেন এই দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটারটি৷ মাঠ এবং মাঠের বাইরে তিনি সমান জনপ্রিয়৷

০৪. বিরাট কোহলি: বাইশ গজে বোলারদের নাস্তানাবুদ করে আগুন ঝরানো বিরাট কোহলি দেখতেও সুদর্শন৷ নিজের লুক নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করাটা এখন যেন অভ্যাসে পরিণত করেছেন ভারতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক কোহলি। ব্যাটের পাশাপাশি নিজের লুকস দিয়েও ‘খুন’ করতে জানেন বিরাট৷ শচিন ও ধোনির ফ্যানের সংখ্যা এখনও বেশি হলেও, মহিলা ফ্যানের দিক দিয়েই সবাইকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন বিরাট কোহলি৷

০৩. কেভিন পিটারসেন: ৬ ফুট ৫ ইঞ্চির কেভিন পিটারসেন ক্রিকেট জগতের অনতম হ্যান্ডসাম ক্রিকেটার৷ ২০০৪ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে পিটারসেনের৷ ক্রিকেটার হিসেবে নাম কেনার পাশাপাশি, ইংল্যান্ডে তিনি বিখ্যাত স্টাইল আইকন হিসেবে৷ আইপিএলে দিল্লি ডেয়ার ডেভিলসে খেলার পর থেকে তার ভক্তের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে৷

০২. শহীদ আফ্রিদি: হ্যান্ডসাম ক্রিকেটারের তালিকায় শাহীদ আফ্রিদির থাকাটা একপ্রকার নিশ্চিতই বটে৷ পাকিস্তানের তরুণীদের মধ্যে তিনি সবসময়ই হট ফেভারিট৷ ব্যাট হাতেও তিনি বিখ্যাত৷ বিখ্যাত তিনি বুমবুম নামেও৷ ক্রিকেটের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডারের তকমা দেওয়া হয় তাকে৷

০১. ব্রেট লি: বল হাতে ব্যাটম্যানদের উইকেট ছিটকে দেওয়ার পাশাপাশি, বহু নারী হৃদয়ে ঝড় তুলেছেন ব্রেট লি৷ তাই লুকসের জন্য ভারত থেকে অস্ট্রেলিয়া, সব জায়গাতেই তার ফ্যানের সংখ্যা কম নয়৷ ক্রিকেটের পাশাপাশি গান-বাজনার প্রতি সখ রয়েছে ব্রেটের৷ নিজে গান গেয়েছেন এবং অভিনয় করেছেন সিনেমাতেও৷ সব মিলিয়ে তিনি একটা প্যাকেজই বটে৷

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মাধ্যমের কল্যাণে এখন ব্যাটিং, বোলিং ছাড়াও ‘আকর্ষণীয়’ চেহারাও এখন জনপ্রিয়তার অন্যতম বড় মানদন্ড। যুগে যুগে তরুণীদের বুকে কাঁপন ধরানো অনেক সুদর্শন ক্রিকেটারই মাতিয়ে গেছেন ২২ গজের পিচ।