সারাকে মনের কথা বলেই ফেলবেন, ঠিক করে ফেলেছিলেন সুশান্ত, দাবি ফার্মহাউসের ম্যানেজারের

সারা আলি খান ও সুশান্ত সিং রাজপুত একে অপরের প্রেমে পড়েছিলেন। ‘কেদারনাথ’-এর শ্যুটিংয়ের সময় তাঁরা ডেট করছিলেন। সম্প্রতি, একথা প্রকাশ্যে এনেছেন সুশান্তের বন্ধু স্যামুয়েল হাউকিপ। এবার সুশান্ত-সারার প্রেমে পড়া সম্পর্কে আরও একটি তথ্য প্রকাশ্যে আনলেন অভিনেতার লোনাওয়ালা ফার্মহাউসের ম্যানেজার রইস।

IANS-কে রইস জানিয়েছেন, ”বেড়াতে যাওয়ার সময়ই সারা ম্যামকে প্রেম নিবেদন করার কথা ঠিক করে ফেলেছিলেন সুশান্ত স্যার। এমনকি সারা ম্যামকে বিশেষ কিছু উপহার দিতে চেয়েছিলেন স্যার, সেটা তিনি অর্ডারও করেছিলেন। যদিও সেই ট্রিপটা হয়নি। পরে তাঁদের একসঙ্গে কেরল বেড়াতে যাওয়ার কথা ছিল ২০১৯এর ফেব্রুয়ারি, মার্চের দিকে। পরে সেটাও বাতিল হয়ে যায়। পরে শুনলাম ওনাদের বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। তারপর থেকে সারা ম্যাম আর ফার্মহাউসে আসেননি। ”

সুশান্ত কি সারাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে চেয়েছিলেন? এ প্রশ্নের উত্তরে রইস জানান, ”ওটা বিয়ের প্রস্তাব ছিল কিনা সেবিষয়ে আমি নিশ্চিত নই। তবে আমি সুশান্ত স্যারের দুই বন্ধুকে আলোচনা করতে শুনেছি যে, স্যার সারা ম্যামকে প্রেম নিবেদন করবেন আর কিছু উপহার দেবেন।” সুশান্তের লোনাওয়ালা ফার্মহাউসের ম্যানেজার আরও জানান, ”২০১৮ সাল থেকে সারা ম্যাম সুশান্ত স্যারের ফার্মহাউসে আসতেন। তাঁরা ফার্মহাউসে এলে একসঙ্গে ৩-৪দিন কাটিয়ে তবেই ফিরতেন”।

জানা যায়, থাইল্যান্ড ট্রিপ থেকে ফিরে সারা ও সুশান্ত লোনাওয়ালার ফার্মহাউসেই উঠেছিলেন। প্রসঙ্গত, এর আগে নাম বদলে সুশান্তের সঙ্গে থাইল্যান্ড বেড়াতে যাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন অভিনেতার বন্ধু স্যামুয়েল হাউকিপ। সম্প্রতি থাইল্যান্ড থেকে ফেরার সময় সারার ছবিও সামনে এসেছে। যেখানে স্যামুয়েল হাউকিপের সঙ্গেই বিমানবন্দর থেকে বের হতে দেখা গিয়েছে সইফ কন্যাকে। সংবাদমাধ্যমের নজর এড়াতে সুশান্ত বের হয়েছিলেন অন্য গেট দিয়ে।

এমনকি থাইল্যান্ড যাওয়ার সময় সারার জন্যই সুশান্ত ব্যক্তিগত বিমান ভাড়া করেছিলেন বলেও শোনা যায়। স্যামুয়েল হাউকিপ দাবি করেন, কেদারনাথের শ্যুটিং এবং প্রমোশনের সময় সারা আলি খানের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান সুশান্ত। একে অপরের প্রতি ভালবাসা এবং শ্রদ্ধাই তাঁদের সম্পর্কের মূল চাবিকাঠি ছিল বলেও দাবি করেন স্যামুয়েল দাবি করেন। তবে সুশান্তের সোনচিড়িয়া বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ার পর সারা নাকি অভিনেতার কাছ থেকে সরে যান। বলিউড ‘মাফিয়াদের’ চাপে পড়েই নাকি সুশান্তের কাছ থেকে সারা সরে যান বলেও দাবি করেন স্যামুয়েল।

সারার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর সুশান্ত ভেঙে পড়েছিলেন বলে দাবি করেছিলেন অভিনেতা বন্ধু স্মিতা পারিখ। স্মিতা পারিখের কথায়, সারার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর সুশান্তকে ভেঙে পড়তে দেখে ছিলাম, শিশুদের মতো ডুকরে ডুকরে কেঁদেছেন সুশান্ত।

সূত্র: জিনিউজ।