স্পিন নয়, গতিতে বাংলাদেশকে ঘায়েলের ছক লঙ্কার

স্পিন নয়, গতি দিয়ে বাংলাদেশকে ঘায়েলের ছক সাজাচ্ছে শ্রীলঙ্কা, সেই আভাস দিয়েছেন এসএলসির নির্বাচক প্যানেলের চেয়ারম্যান, আশান্তা ডে মেল। তিন টেস্টের সিরিজে দুই ম্যাচের সম্ভাব্য ভেন্যু, পাল্লেকেলের কন্ডিশন পেইসবান্ধব। আর তাই ভিন্নভাবে চিন্তা করতে হচ্ছে টাইগার ম্যানেজমেন্টকেও। লঙ্কা সফরে তিন পেইসার খেলানোর ভাবনা, তাই অসম্ভব নয়।

হোম সিরিজে বরাবরই স্পিনে প্রতিপক্ষ ঘায়েলের ছক শ্রীলঙ্কার, তাতে তারা সফলও বটে। কিন্তু সময়ের সাথে গতি পাল্টাতে শুরু করেছে। মুরালিধরন যাবার পরও হাল ধরে রেখেছিলেন রঙ্গনা হেরাথ। কিন্তু তার অবসরের পর নেতৃত্ব শূন্য লঙ্কান স্পিন অ্যাটাক। এখন দিলরুয়ান পেরেরা-ই যা ভরসা।

বিপরীতে তাইজুল-মিরাজ-নাঈমদের নিয়ে ব্যালান্সড স্পিন অ্যা’টাক বাংলাদেশের। নিষে’ধাজ্ঞা শেষে সাকিব ফিরলে, তা হবে আরও ধারা’লো। সবমিলিয়ে এবার ভিন্ন স্ট্র্যাটে’জিতে বাংলাদেশকে হারানোর ছক লঙ্কানদের।

স্পিনের চেয়ে এখন পেইসে ভরসা খুঁজছে ম্যানেজমেন্ট। সিরিজে তিন টেস্টের দুটি হওয়ার কথা পাল্লেকেলে-তে। ওখানকার কন্ডিশন পেইসারদের সহায়তা করে। এ কারণে, পেইস অ্যা’টাক ভারী কোরে স্কোয়াড সাজাবে স্বাগতিকেরা।

এসএলসি নির্বাচক প্যানেলের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজার আসান্হা ডি মেল বলেন, পেইসে তাদের পরাস্থ করার চিন্তা আমাদের। অবশ্যই স্পিন কেন্দ্রিক পরিকল্পনা নয়। বাংলাদেশের স্পিন আক্রমণ বেশ ভালো। আর আমাদের কিছু দারুন ফাস্ট বোলার রয়েছে। নিজেদের শক্তিমত্তায় গুরুত্ব দিতে চাই। স্কোয়াডে ৫ পেইসার রাখার কথা ভাবছে কোচিং স্টাফ।

শ্রীলঙ্কার স্ট্র্যাটেজি আগে থেকে কি আচ করতে পেরেছে বাংলাদেশ? এ কারণে সফরে পেইস অ্যাটাক নিয়ে বাড়তি ভাবনা টাইগার ম্যানেজমেন্টের। প্রধান নির্বাচক, তিন পেইসার খেলানোর সম্ভাবনাও দেখছেন।

২০১৭ তে লঙ্কান ডেরায় একমাত্র টেস্ট জিতেছিল বাংলাদেশ। ওই ম্যাচে টাইগার স্পিনাররা নিয়েছিল ১২ উইকেট। তবে ম্যাচ জিততে, মুস্তাফিজের অবদান ছিল গুরুত্বপূর্ণ। ঐতিহাসিক জয়ে পাঁচ উইকেট নেয়া ফিজ, এবারে একাদশেই সুযোগ পাবে কিনা নিশ্চিত নয়। পেইসে যে বেশ এলোমেলো বাংলাদেশ।