বলিউডের ২৫ তারকার নাম ফাঁ’স করলেন রিয়া

রিয়া চক্রবর্তী এবং তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে যে, সম্প্রতি জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন বলিউডের বহু তারকাদের নাম নিয়েছেন রিয়া ও সৌভিক। বলিউডের বহু অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক এই মা’দক চক্রের সঙ্গে জ’ড়িত বলে দাবি করেছেন রিয়া।

এমনকি সম্প্রতি হওয়া বেশকিছু বলিউডের পার্টিতে মাদ’কের যোগান রাখা হয় বলেও তিনি জানিয়েছেন। প্রায় ২৫ জন বলিউড তারকার নাম করেছেন রিয়া এবং সৌভিক। আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যে বলিউডের এই তারকা দের তলব করবে এনসিবি। রিয়া চক্রবর্তীর দাবি ছিল কেদারনাথ ছবির সেটে নিয়মিত গাঁ’জা নিতেন সুশান্ত সিং রাজপুত।

রিয়া চক্রবর্তীর আইনজীবী সতীশ মানসিন্দে বলেছিলেন, “সুশান্তের জীবনে রিয়া আসার অনেক আগে থেকেই তিনি মাদ’ক নিতেন। রিয়া এমনকি এও জানতেন যে ২০১৬- ২০১৭ সালে কেদারনাথ এর শুটিং চলাকালীন তিনি নিয়মিত গাঁ’জা খেতেন। রিয়া তার জীবনে আসার পর তিনি মা’দকাস’ক্ত হয়েছিলেন এমন নয়। চি’কিৎসকের বারণ সত্তেও সুশান্ত মাদ’ক নিতেন।”

সম্প্রতি রিয়া চক্রবর্তী সুশান্ত সিং রাজপুতের দিদি প্রিয়াঙ্কা সিং এবং মিতু সিং এবং দিল্লির চি’কিৎসক তরুণ কুমার এর বিরু’দ্ধে জালিয়াতির অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেছেন মুম্বাই পুলিশের কাছে। রিয়ার দাবি কোনোরকম কনসাল্ট না করে সুশান্তকে এরা ওষু’ধ প্রেসক্রা’ইব করেছিলেন।

এনসিবিকে রিয়া জানিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত নিয়মিত গাঁ’জা নিতেন। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, রিয়া চক্রবর্তী তদন্তে এনসিবিকে য’থেষ্ট সহযোগিতা করছেন। কিন্তু একই সঙ্গে তিনি বেশকিছু ব্যাপার এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন এবং ঘুরিয়ে উত্তর করছেন। রিয়া স্বীকার করেছেন যে তিনি বাড়িতে গাঁ’জার যোগান রাখতেন। সেই গাঁ’জা দীপেশ সাওয়ান্তকে দিয়ে আনাতেন।

প্রসঙ্গত, তিনদিন জেরার পর রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রে’ফতার করল নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যুর মাম’লায় মূল অভিযুক্ত তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে। সুশান্তের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়।

আগেই রিয়ার ভাই শৌভিক ও সুশান্তের ম্যানেজার মিরা’ন্ডা ও স্টাফ দীপেশকে গ্রেফ’তার করা হয়েছিল। এরপর গত তিনদিন পরপর জেরা করা হয় রিয়াকে। মঙ্গলবার শুরু হল অভিনেত্রীর গ্রে’ফতারির প্রক্রিয়া। ইতিমধ্যেই মেমো তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।