উইঘুর মুসলিমদের ওপর নি’র্যাতন-নি’পীড়ন বন্ধ করতে হবে : ১৩০ জন ব্রিটিশ এমপি

চীনের উইঘুর মুসলিমদের ওপর নি’র্যাতন-নি’পীড়ন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন ১৩০ জন ব্রিটিশ এমপি। এ নিয়ে মঙ্গলবার ব্রিটেনে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লিউ শিয়াওমিংয়ের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন তারা। এতে সই করেছেন হাউস অব কমন্স এবং হাউস অব লর্ডসের সদস্যরা। দ্য ইকোনমিক টাইমস।

চিঠিতে বলা হয়েছে, উইঘুর মুসলিমদের প্রতি চীন যে আ’চরণ করে চলেছে তা অবশ্যই ‘জাতিগত নির্মূলের’ উদ্দেশ্যে করা হচ্ছে। পরিকল্পিতভাবেই এ ধরনের নির্যা’তন চালানো হচ্ছে। জার্মানিতে নাৎসিরা যে ধ’রনের অ’ত্যাচার চালিয়েছিল উইঘুর মুসলিমদের ওপরও সেই ধরনের অ’ত্যাচার চলছে। জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমরা কিভাবে বসবাস করছে সে সম্পর্কে সব কিছু প্রকাশ্যে আনতে হবে। বিশ্ববাসীর উদ্বেগ দূর করতেই এই পদক্ষেপ নিতে হবে বেইজিংকে।

যদিও উইঘুর মুসলিমদের ওপর নি’র্যাতন চালানোর অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে চীনের কমিউনিস্ট সরকার। বেইজিং দাবি করেছে, চীন সরকার সর্বদা জাতিগত সংখ্যাল’ঘুদের বৈ’ধ অধিকার রক্ষা করে। চীনের অন্যান্য অংশের লোকদের সঙ্গে যেমন আচরণ করা হয় উইঘুরদের সঙ্গেও একই আচরণ করা হয়। অ’ত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অনেক উইঘুর মুসলিম বিদেশে চলে গেছে।

সেখানে তারা ভ’য়াবহ নি’র্যাতনের কথা বলছেন। তাদের চলাফেরার ওপর নিয়ন্ত্রণ, বন্দিশালায় আটকে রাখা, শিশুদের বাবা-মায়ের কাছ থেকে দূরে রাখা, নিয়মিত ঘরবাড়ি তল্লাশি করা, হু’মকি দেয়া এবং শা’রীরিক নির্যা’তনের অভিযোগ করেছেন তারা।