সিনেমা বুঝে পরে ওয়েব সিরিজ : দীঘি

অভিনেতা সুব্রত ও অভিনেত্রী দোয়েল দম্পতির একমাত্র মেয়ে দীঘি। পুরো নাম প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। শিশুশিল্পী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরুর পর মাঝে দীর্ঘ আট বছরের বিরতি কাটিয়ে চলচ্চিত্রের নায়িকা হয়ে ফিরেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি কাজ করছেন শামীম আহমেদ রনি পরিচালিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ ছবিতে। এছাড়া আরও কয়েকটি ছবি রয়েছে তার হাতে।

এর পাশাপাশি ভালো গল্প ও চরিত্র পেলে ওয়েব সিরিজে কাজ করতেও আগ্রহী দীঘি। তবে নায়িকা জানালেন, ছোট পর্দায় আসতে কিছুটা সময় লাগবে। সিনেমার কাজটি ভালো ভাবে বুঝে তার পরেই তিনি ওয়েব সিরিজে কাজ করতে চান। তার কথায়, সব ধরনের গল্পে কাজ করতে চাই। দর্শক যেটা পছন্দ করবে তাতেই নিয়মিত হব। নিজেকে ভেঙ্গে চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে মেলে ধরব।’

এদিকে দীর্ঘ সময় পর অভিনয়ে ফেরা প্রসঙ্গে দীঘি বলেন, ‘আট বছর পর ডিরেক্টরের মুখ থেকে অনেক জোরে রোলিং, ক্যামেরা, অ্যাকশন শুনলাম। এই তিনটা শব্দ যে আমার কাছে কী ভালোলাগার, তা আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। নায়িকা হিসেবে আমার প্রথম সিনেমা ‘টুঙ্গিপাড়ার মিঞা ভাই’।’

এই ছবিতে শেখ মুজিবুর রহমানের স্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ওরফে ‘রেনু’র ভূমিকায় অভিনয় করছেন দীঘি। দীঘি থেকে রেনু হওয়ার গল্পটা কেমন? দীঘি বলেন, ‘অনেক আগে থেকেই রেনুর জন্য প্রস্তুতি নিয়েছি। শ্যাম বেনেগালের ছবিতে রেনু চরিত্রের জন্য নিবার্চিত হই, সেই থেকে প্রস্তুতি শুরু। ফলে সমস্যা হয়নি। পড়াশোনা করেই নিজেকে তৈরি করছি।

তিনি আরও জানান, ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ দিয়ে শুরু। মোট পাঁচটি ছবির কাজ করতেছি। চলতি মাসেই এই ছবিটির কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। এটি শেষ হলেই দ্বিতীয় ছবির শুটিং শুরু হবে। বাকিগুলোর গল্প রেডি হচ্ছে।’ আপাতত দীঘি আশাবাদী, তার অভিষেক ছবিটি সবাই সাদরে গ্রহণ করুক।-ঢাকাটাইমস