সালাহর রেকর্ড হ্যাটট্রিকে লিভারপুলের নাটকীয় জয়

আর মিনিট কয়েক পার হয়ে গেলেই পয়েন্ট হারাতে হতো ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের (ইপিএল) চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলকে। এ জন্য প্রতিপক্ষ লিডসের রদ্রিগোকে ধন্যবাদ দিতেই হবে দ্য রেডসদের। ৮৮ মিনিটে তার ফাউলেই পেনাল্টি পায় লিভারপুল; এতেই যেনো পোয়াবারো ইয়ার্গুন ক্লপের শিষ্যদের। এই পেনাল্টি থেকে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করে এই মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই দলকে জয় এনে দেন মোহাম্মদ সালাহ।

বাংলাদেশ সময় গতকাল শনিবার রাত ১০টায় অ্যানফিল্ডে এই মৌসুমে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামে লিভারপুল-লিডস। গোল বন্যার এই ম্যাচে সালাহর হ্যাটট্রিকে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে রেডসরা। লিভারপুলের ইতিহাসে মোহাম্মদ সালাহই একমাত্র ফুটবলার যিনি টানা চারবার মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই গোলের দেখা পেয়েছেন।

হ্যাটট্রিকের দুটো গোলই আসে পেনাল্টি থেকে। ম্যাচের শুরুতেই চার মিনিটের মাথায় পেনাল্টি গোল দিয়ে শুভসূচনা এনে দেন সালাহ। ডি বক্সে সালাহর শট লিডেসের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় রবিন কচের হাতে লাগে, আর তাতেই পেনাল্টি পেয়ে যান ক্লপের শিষ্যরা। ম্যাচের চার মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে লিডসের জালে বল জড়াতে ভুল করেননি সালাহ। আবার শেষ সময়ে পেনাল্টি থেকেই গোল দিয়েই হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন এই মিসরীয়।

৯ মিনিটের সময় গোল শোধ করেন লিডসের কস্তা। কিন্তু ভাগ্য খারাপ হলে যা হয় অফসাইডে গোলটি বাতিল হয়ে যায়।অবশ্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি সফরকারীদের, ১২ মিনিটের সময় দুর্দান্ত গোলে ম্যাচে সমতা আনেন হ্যারিসন। এরপরেই সাদিও মানের একটি গোলও বাতিল হয় অফসাইডে। লিডস ম্যাচে সমতায় আসার ১০ মিনিট না পেরোতেই লিভারপুলকে এগিয়ে দেন ফন ডাইক। ২২ মিনিটের সময় রবার্টসনের কর্নার থেকে লিডসের জালে বল জড়াতে ভুল করেননি এই তারকা ডিফেন্ডার।

লিভারপুল ১০ মিনিটও এগিয়ে থাকতে পারেনি, বামফোর্ডের গোলে আবারও সমতা নিয়ে আসে লিডস। এর মিনিট তিনেক পর (ম্যাচের ৩৩ মিনিট) আবার আক্রমণে আসেন মোহাম্মদ সালাহ। নিজের দ্বিতীয় গোলে দলকে আবারও এগিয়ে দেন। এই ৩৩ মিনিটের মধ্যেই পাঁচটি গোল হয়ে যায়। ৩-২ গোলের ব্যবধান রেখে বিরতিতে যায় দুই দল।

৩৩ মিনিটে পাঁচ গোল হয়ে গেলেও বিরতির পর ফিরে গোলের দেখা পাচ্ছিল না কোনো দলই। ম্যাচের ৬৬ মিনিটের সময় এগিয়ে যাওয়ার যুযোগ আসে লিডসের সামনে। সেই যুযোগ কাজে লাগিয়ে দলকে তৃতীয়বারের মতো এগিয়ে দেন ক্লিচ। ৩-৩ সমতা বজায় থাকে ম্যাচের অন্তিম সময় পর্যন্ত। মাঝে ফন ডাউকের একটি গোল বাতিল হয় অফসাইডে।

এখানেই শেষ নয়। নাটক যেনো অপেক্ষা করছে শেষ সময়ের জন্য। যারা ড্র হচ্ছে ভেবে টিভি অফ করে খেলা বন্ধ করে দিয়েছেন উল্টো তাদেরই ক্ষতি হয়েছে। রেকর্ড ট্রান্সফারে এই মৌসুমেই লিডসের হয়ে খেলতে আসা রদ্রিগো ডি-বক্সে ফাউল করে বসেন ফ্যাবিনহোকে। এতেই যেনো কপাল খুলে যায় রেডসদের। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে জালে বল জড়াতে ভুল করেননি সালাহ। মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই হ্যাটট্রিক আবার দলের জয়; আর কী লাগে সালাহর। শেষ পর্যন্ত পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়ে লিভারপুল।