নতুন বোলিং অ্যাকশন নিয়ে মাঠে নামছে তাইজুল

করোনার কারণে লম্বা একটা সময় ধরে মাঠের বাইরে ক্রিকেটাররা। খেলোয়াড়দের জন্য খেলার বাইরে থাকা কঠিন। আবার টানা ব্যস্ততার মধ্যে লম্বা বিরতিকে চাইলে কাজেও লাগানো যায়। এই যেমন, দীর্ঘ এই সময়টায় নিজের বোলিং অ্যাকশন বদলে ফেলেছেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। গেল কয়েক মাস ধরে নিজের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কাজ করছেন তাইজুল। নিজেকে প্রস্তুত করছেন তিন ফরম্যাটের জন্য। সাধারণত জাতীয় দলের হয়ে টেস্ট খেলার সুযোগ হয় তার। করতে হয় দীর্ঘ সময় ধরে বোলিং।

তাছাড়া বোলিংয়ে ভেরিয়েশনের ব্যাপার আছে। সবকিছু চিন্তা ভাবনা করেই ‘অযাচিত’ বি’রতিতে বোলিং অ্যা’কশন পরিবর্তন করলেন তাইজুল। তিনি বলেন, আমার যে আগের অ্যা’কশনটা ছিল তাতে এক জায়গায় বল করতে বেশ সুবিধা ছিল। তবে ভেরিয়েশনটা পেতাম না সেভাবে। নতুন এ্যাকশনটা দিয়ে আমি সব ফরম্যাটে খেলতে পারবো। বিভিন্ন দিক চিন্তা করে, বাউন্স কিংবা ভেরিয়েশনের কথা চিন্তা করে অ্যাকশন চেঞ্জ করলাম। নতুন এ্যাকশনে বেশ সফলতাও পাচ্ছি ব্যাটসম্যানদেরকে বোলিং করে।

এখন টানা বোলিং করতেও আমার সমস্যা হচ্ছেনা। স্পিন কোচ ভেট্টোরির সঙ্গেও আমার বেশ কয়েকবার কথা হয়েছে। তার কাছ থেকে শেখার চেষ্টা করছি। তাইজুলের চোখ শ্রীলঙ্কা সিরিজে। দীর্ঘদিন পর এই সিরিজের মাধ্যমে আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল টাইগারদের সামনে। তবে সম্প্রতি আবার শুরু হয়েছে অস্থিরতা। ক্রিকেটারদের জন্য যে সিরিজটা কতোটা প্রয়োজন তা পরিষ্কার ফুটে উঠলো তাইজুলের কণ্ঠে। তিনি বলেন, আমরা যারা ক্রিকেট খেলোয়াড়, আমাদের জন্য বেশিদিন খেলার বাইরে থাকা খুবই কঠিন। আমরা সবসময়ই খেলতে পছন্দ করি।

আমাদের সামনে শ্রীলঙ্কা সিরিজ আছে। এটা হওয়াটা খুবই ইম্পরট্যান্ট। তাহলে আমরা হয়তো আবার সবাই মাঠে ফিরতে পারবো। যদি সবকিছু আবার আগের মতো ফিরে আসে তাহলে আমাদের অনেক ভালো লাগবে। মাঝে আমরা ৩-৪ মাস কোন প্র্যাকটিস করতে পারিনাই। হয়তো ঘরে বসে নিজেদেরকে ফিট রাখার চেষ্টা করেছি। তারপরও এতদিন পর ফিরে আসাটা খুব কঠিন।

বিসিবিকে ধন্যবাদ আমাদেরকে প্র্যাকটিস করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য। আমরা চেষ্টা করছি নিজেদের কনফিডেন্স ফিরিয়ে আনার।