অর্চিতা স্পর্শিয়া এখন অনেক পরিণত

‘কমার্শিয়াল বা ননকমার্শিয়াল বলে সিনেমাকে দুই ভাগে ভাগ করতে চাই না। আমি মনে করি, বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে যে ছবি নির্মাণ হয় সেগুলো কমার্শিয়াল। তবে নির্মাণে বা গল্প বলার ঢংয়ের পার্থক্য থাকতে পারে। কিন্তু প্রতিটি ছবির বিষয় একই। দর্শককে বিনোদিত করার পাশাপাশি বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়া।’ সিনেমা নিয়ে এমন কথাই বলছিলেন অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া। তার এ কথা শুনেই বুঝতে পারা যায় স্পর্শিয়া আর সেই ছোট্টটি নেই। এখন বেশ পরিণত। চলনে-বলনে, কথা ও কাজে সব জায়গাতেই পরিণত ভাবটা স্পষ্ট।

চার বছর আগে থেকেই স্পর্শিয়া বলে আসছিলেন- নাটক নয়, সিনেমায় ক্যারিয়ার গড়বেন তিনি। সে ভাবনা থেকেই নাটকে অভিনয় কমিয়ে দিয়েছিলেন। শুধু কি সিনেমার জন্য নাটকে অভিনয় না করা? এমন প্রশ্নের উত্তরে স্পর্শিয়া বললেন, ‘আমি চেয়েছি নাটকে অভিনয় ছেড়ে কেবল সিনেমা নিয়েই থাকতে। এখানেই সময় দিতে। দিয়েছিও। বিগত বছরগুলোতে কোনো টিভি নাটক করিনি। ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য দুই একটা ওয়েব সিরিজ করেছি। সিনেমাই এখন আমার ধ্যান-জ্ঞান।’

চলচ্চিত্রে অর্চিতা স্পর্শিয়ার পথচলা শুরু হয়েছিল ২০১৭ সালে অনন্য মামুনের ‘বন্ধন’ দিয়ে। যদিও ছবিটি এখনও মুক্তি পায়নি। এরপর একে একে অভিনয় করেছেন ‘আবার বসন্ত’, ‘ইতি, তোমারই ঢাকা’, ‘কাঠবিড়ালী’, ‘মানুষের বাগান’ ছবিতে। এর মধ্যে মুক্তি পেয়েছে ‘আবার বসন্ত’ ও ‘কাঠবিড়ালী’। দুটি ছবিই যারা দেখেছেন, তারা বিনাবাক্যে প্রশংসা করেছেন স্পর্শিয়ার।

যে সময়টাতে স্পর্শিয়া সিনেমাতে ক্যারিয়ার গড়বেন বলে লক্ষ্য স্থির করলেন, তখন অনেকেই হতাশায় সিনেমা ছেড়ে দেওয়ার কথাও বলছিলেন। কারণ, একে একে দেশের সব হল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সিনেমা নির্মাণে পাল্লা দিয়ে উঠতে পারছিলেন না। স্পর্শিয়া সেখানে মোটেও হতাশ নন। তিনি বলেন, ‘একটু খেয়াল করে দেখুন, আমাদের দেশে কিন্তু এখন ভালো ভালো ছবি হচ্ছে। অনেক প্রতিভাবান অভিনয়শিল্পী বিভিন্ন ধরনের কাজ করছেন। হল বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা বলছেন! পৃথিবীর সব দেশেই এখন সিনেমা হলের ওপর দর্শক নির্ভরতা কমে আসছে।

এটা সময়ের চাহিদা। হলিউড কিংবা বলিউডে হলের অপেক্ষায় কেউ বসে থাকছে না। নেটফ্লিক্স, ডিজনি হটস্টার, হইচইয়ের মতো ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের দিকেই ঝুঁকছেন সবাই। তাই প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ হয়ে গেলেও সিনেমার যে খুব বেশি ক্ষ’তি হবে এমনটা নয়। হ্যাঁ, সিনেমা হলে সিনেমা দেখার যে ঐতিহ্য বা আনন্দ, তা হারিয়ে যাবে। তবে ধীরে ধীরে এই প্রজন্ম বর্তমানকেই লুফে নেবে। আমাদের এটা চিন্তা করেই কাজ করতে হবে।’

কথা বলার সময়ে এক অন্য স্পর্শিয়াকেই যেন পাওয়া গেল। প্রাণ-প্রাচুর্যে ভরপুর এক স্পর্শিয়া। যে স্পর্শিয়াকে আগামী ছবিতে দেখা যাবে ‘শুভ্রা’ চরিত্রে। অনন্য মামুন পরিচালিত ‘নবাব এলএলবি’র অন্যতম মুখ্য একটি চরিত্র শুভ্রা। ছবির নামভূমিকায় আছেন শাকিব খান। আছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিও। শাকিব খানের সঙ্গে স্পর্শিয়ার প্রথম কাজ এটি। মাহির সঙ্গেও। দেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির সেরা নায়কের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

জানতে চাইলে স্পর্শিয়া বলেন, “শাকিব ভাইকে নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। এককথায় অসাধারণ। ক্যামেরার সামনে অসাধারণ এক শাকিবের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা হচ্ছে। এই ছবির প্রতিটি চরিত্রই অসাধারণ। মাহি আপুর সঙ্গেও কাজের দারুণ অভিজ্ঞতা হচ্ছে। বেশ হেল্পফুল তিনি। আর অনন্য মামুন ভাইয়ের সঙ্গে আগেও কাজ করেছি। তার সঙ্গে কাজ করাটা নিজের পরিবারে কাজের মতো লাগে। মোটকথা ‘নবাব এলএলবি’ একটি টিমওয়ার্কের নাম।’

বলা হচ্ছে ‘নবাব এলএলবি’ও মুক্তি পাবে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। সেইসঙ্গে হল খুললে হলেও মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছবি অনলাইনে মুক্তি পেলেই হয়তো বোঝা যাবে কোন পথে হাঁটতে যাচ্ছে ভবিষ্যতের সিনেমাশিল্প। স্পর্শিয়া জানালেন, নতুন কিছু গ্রহণ করতে প্রথমে কিছুটা ধাক্কা আসে। তবে পরে ঠিক হয়ে যায়। ‘নবাব এলএলবি’ ছবি দিয়ে দেশের দর্শক ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও নতুন ছবি দেখার স্বাদ পাবেন। আর ঢাকাই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির নতুন এক দ্বা’র উন্মোচিত হবে। এবার দেখার পালা সে দ্বার দিয়ে কতটা উন্নয়ন আসে দেশের সিনেমায়।

সূত্র: সমকাল।