বাবা রিকশাচালক আর মা দিনমজুর, ছোট্ট আমেনাকে আগলে রাখে সোনালী

মেয়েটার নাম সোনালী। বাবা-মায়ের সাথে তাদের ভাসমান সংসার। দু’মাস হলো তাদের কোলে ফুটফুটে শিশুটি এসেছে। বাবা রিকশাচালক। তার আয়ে কোনভাবেই সংসার চলে না। এই নতুন অতিথি এখন মায়ের বুকের দুধ খাবে। কিন্তু দেখতে দেখতে বেড়ে উঠবে সে। এমনিতেই তিন সদস্যের সংসারেই খাদ্যের জোগান প্রতিদিনের এক দুঃসহ দুশ্চিন্তা হয়ে ওঠে বাবা-মায়ের।

কিছু দিন বাদে নতুনের মুখেরও খাবার তুলে দিতে হবে। তাই দুধের শিশুটিকে বড় বোনের দেখভালে রেখে দিনমজুরি করছেন মা। গতকাল দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে ছবিটি তুলেছেন সিনিয়র ফটোগ্রাফার শেখ হাসান। মেয়েটার নাম সোনালী। ছবিটি যখন তোলা হচ্ছে তখন তার মা খাদিজা কাজে বেরিয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পান এবং আশপাশের ফুটপাত তাদের ঘর-বিছানা-সংসা।

বাবা প্রতিদিনের মতো রিকশা নিয়ে বেরিয়ে যান। সম্প্রতি মাও চলে যাচ্ছেন কাজে। সোনালীর একমাত্র কাজ শিশুটিকে দেখেশুনে রাখা। সোনালীর সাথে কথা বলে জানা গেলো, ঢাবির এলাকায় ড্রেনেজের কাজ চলছে। সেখানে মাটি কাটা কিংবা বালু টানার কাজ করছেন মা। এটা তার বোনা। নাম রাখা হয়েছে আমেনা। মা যেখানে কাজ করেন তার আশপাশেই আমেনাকে নিয়ে সময় কাটায় সোনালী। কারণ, বোনটা বেশি কান্নাকাটি শুরু করলে বা তার খিদে লাগলে সে আর সামলাতে পারে না।

তখন দৌড়ে মায়ের কাছে নিয়ে যায়। মা কোলে নিয়ে আমেনাকে দুধ খাওয়ান। একটু আদর করেন। আবার কাজে চলে যান। সোনালী আবারও বোনটাকে কোলে নিয়ে তার মতো করে সময় কাটায়।

সূত্র: কালের কণ্ঠ।