শ্রীলঙ্কা থেকে ‘ইতিবাচক’ সাড়া পেয়েছে বিসিবি

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এখন ক্যাম্পে থাকতে হতো জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যদের। সফরকালীন স্বাস্থ্যবিষয়ক নীতিমালার জন্য এখনো থমকে আছে সবকিছু। কখন কীভাবে কী হবে তা এখন পর্যন্ত অনিশ্চিত। তবে টেস্ট চ্যম্পিয়নশিপের এই সিরিজ নিয়ে ইতিমধ্যে শ্রীলঙ্কা থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

আজ শনিবার সফর নিয়ে ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার কথা জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী। ইতিবাচক সাড়াটা ঠিক কী তা বিস্তারিত জানাতে পারেননি নিজামউদ্দীন চৌধুরী। তিনি এই মুহূর্তে এটা নিয়ে স্পষ্টভাবে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

বিসিবির এই কর্মকর্তা বলেন, ‘ইতোমধ্যে বেশকিছু বিষয় শ্রীলঙ্কান বোর্ডের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে একটা বিবৃতি গিয়েছে, এরপর আর আলোচনা হয়নি। শ্রীলঙ্কান বোর্ড জানিয়েছে, আমাদের বিষয়গুলো তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরেছে এবং ইতিবাচক সভা হয়েছে।’

এখনো মন্তব্য করতে চান না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আসলে এই বিষয়টি এই মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করাটা ঠিক হবে না। তারা বলেছে যে আমাদের বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে এবং ভালো একটা আলোচনা হয়েছে। এরপর এটার আউটকাম বা রিভাইস প্রটোকল না পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’

সবকিছু ঠিক থাকলে গতকাল থেকেই শুরু হতো শ্রীলঙ্কা সফরের ক্যাম্প। ক্রিকেটারদের বিচ্ছিন্নভাবে রাখার জন্য একটি পাঁচতারকা হোটেলের পুরো ফ্লোরই ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। হোটেলে অবস্থানের শেষ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট সবাই আলাদা থাকবেন। তবে শ্রীলঙ্কা এখন পর্যন্ত স্পষ্ট করে কিছু না জানানোয় এগুলো ব্যবস্থা করা সম্ভব হচ্ছে না।

নিজামউদ্দিন চৌধুরীর আশা দুয়েক দিনের মধ্যেই সিদ্দান্ত আসবে। তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করেছি আগামী দুই একদিনের মধ্যে তাদের কাছ থেকে দিক নির্দেশনা বা হেলথ প্রোটোকল পাব।’

এই মাসের ২৭ তারিখ শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে যাওয়ার কথা ছিল টাইগারদের। টেস্ট সিরিজ শুরুর কথা ছিল ২৪ অক্টোবর থেকে। এদিকে শ্রীলঙ্কা সফরের শর্ত হিসেবে জানিয়েছিলে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এই সময় হোটেলে থাকা ছাড়া ভিন্ন কিছু করা যাবে না। বিসিবি এই শর্তে আপত্তি জানিয়ে সফর সম্ভব না বলে দেয়। এরপর থেকেই শর্ত শিথিল নিয়ে আলোচনা শুরু করে শ্রীলঙ্কা।