ওয়েব সিরিজ মানেই কাপড় খুলতে হবে, ফারিয়ার প্রশ্ন

ওয়েব সিরিজ মানেই কি যৌ’নতায় ভরপুর, র’গর’গে দৃশ্য থাকতে হবে। খুলে ফেলতে হবে ব’স্ত্র? এমনই প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন ছোট পর্দার একজন অভিনেত্রী। ফারিয়া শাহরিন, যিনি লাক্স সুপারস্টার হয়েছিলেন। তার কাছেই সম্প্রতি একটি চিত্রনাট্য পাঠানো হয়। সেই চিত্রনাট্যে নায়িকাকে কীভাবে যৌ’নতায় লি’প্ত করা হবে, কীভাবে ব’স্ত্র হরণ করা হবে সেটা সুনিপুণভাবে লেখা রয়েছে। আর এতেই ক্ষি’প্ত হয়েছেন এই অভিনেত্রী।

একেবারে ‘কাঁচা ভাষায়’ লেখা চিত্রনাট্যের ছবি তুলে ফারিয়া শাহরিন নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে পো’স্ট করে লিখেছেন, একটা ওয়েব সিরিজের অফার পেয়েছি। সকাল থেকে খুব মনোযোগ দিয়ে চিত্রনাট্য পড়ছিলাম। মনে যদিও একটা নেগেটিভ চিন্তা ছিল আগে থেকেই। ভাবছিলাম ওয়েব সিরিজের নামে এখন যা হচ্ছে অন্তত এটা যেন এমন না হয়। কিন্তু দেখলাম এটা আরো অনেক বেশি নোংরা। স্ক্রিপ্ট এর ভাষা দেখে তো আমার মাথা ঘুরতেছে। ওমাইগড। ইজ ইট পর্ন? এই অবস্থা কেন আমাদের দেশ-এর?

তিনি বলেন, ওয়েব সিরিজ মানে কি কাপড় খুলতে হবে? নষ্টা’মি নোং’রামি করতে হবে? এইসব এলাউ ক্যামনে করে? লিগ্যাল অ্যাক’শন নেয় না কেন এদের বিরু’দ্ধে। আমার সিরিয়াসলি মাথা ঘুরতেছে। মাথায় আইস ব্যাগ দেওয়া লাগবে। হবে না এসব আমাকে দিয়ে হবে না। ড্রাগ প্রস্টিটিউশন, সে’ক্সে ভরপুর স্ক্রিপ্ট আল্লাহ রহম করো। পুরো স্ক্রিপ্টটা দেওয়া সম্ভব না জাস্ট দুইটা স্ক্রিনশট দিলাম।

এর আগে ওয়েব সিরিজে প্রদর্শিত অ’শ্লী’ল দৃশ্য সরিয়ে ফেলার নির্দেশনা চেয়ে গত ১২ জুলাই রিট আবেদন করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার মো. তানভীর আহমেদে। রিট আবেদনে তথ্য ও স্বরাষ্ট্র সচিব, বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ও পরিচালক, পুলিশের আইজি এবং সিআইডি’র সাই’বার পুলিশ ব্যুরোর অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শককে (ডিআইজি) বিবাদী করা হয়।

এরই প্রেক্ষিতে, বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে থাকা বিভিন্ন ওয়েব সিরিজে প্রদর্শিত অ’শ্লী’ল দৃশ্য ৭ দিনের মধ্যে সরিয়ে ফেলতে বিটিআরসিসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকো’র্ট। একইসঙ্গে বিটিআরসিকে এসব প্ল্যাটফর্ম থেকে কিভাবে রাজস্ব আদায় করে সেবিষয়ে একমাসের মধ্যে হাইকো’র্টে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেখানে আই’নত ওয়েব সিরিজের এসব দৃশ্যের বিরু’দ্ধে ক’ঠোর সরকার, সেখানে অহরহ এমন ওয়েব সিরিজ নির্মাণে আগ্রহী হয়ে উঠছে কতিপয় নির্মাতা।

সূত্র: কালের কণ্ঠ অনলাইন।