নুরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে

রাজধানীর শাহবাগ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরকে আট’কের ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ছেড়ে দেয়া হয়েছে। ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘নুরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে’। এর আগে সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৮টার দিকে তাকে আ’টক করা হয়। ধর্ষ’ণের মাম’লার পাশাপাশি পুলিশের ওপর হা’মলার অভিযোগেও তাকে আট’ক করা হয়।

এরপর তাকে নেয়া হয় ডিবি কার্যালয়ে। এর কিছুক্ষণ পরই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। নুরসহ ছয়জনের বি’রুদ্ধে লালবাগ থা’নায় ঢাবি ছাত্রীর করা ধ’র্ষণের মা’মলার প্রতি’বাদে রাজু ভাস্কর্যে সোমবার বিকেলে বিক্ষো’ভ করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ। সেখানেই পুলিশের ওপর হাম’লা করা হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়। এর আগে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক শিক্ষার্থী লালবাগ থা’নায় এ মাম’লাটি করেন। মা’মলায় মোট ছয়জনকে আ’সামি করা হয়েছে।

তাদের মধ্যে ধ’র্ষণে সহযোগী হিসেবে নুরুল হক নুরের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এদিকে এ মা’মলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৭ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদা’লত। সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরা মা’মলার এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এ দিন ধার্য করেন। মা’মলার প্রধান আসা’মি করা হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে।

ধর্ষ’ণের স্থান হিসেবে লালবাগ থা’নার নবাবগঞ্জ বড় মসজিদ রোডে হাসান আল মামুনের বাসার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। বাদী শিক্ষার্থী ঢাবির বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে থাকেন। নুর ও মামুন ছাড়া মামলার অন্য আসা’মিরা হলেন- বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক (২) মো. সাইফুল ইসলাম, ছাত্র অধিকার পরিষদের সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা এবং ঢাবি শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

সূত্র: সময় নিউজ।