সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে জয় তুলে নিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর

আইপিএলের নিজেদের প্রথম ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে ১০ রানে হারিয়ে প্রথম ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে বিরাট কোহলির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে এবি ডি ভিলিয়ার্সের হাফ সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করলেও ইয়ুজবেন্দ্র চাহালএর চমৎকার বোলিংয়ে ১৫৩ রানে অলআউট হয় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ এবং দেবদূত পাদিক্কেল। শুরু থেকেই সানরাইজ হায়দ্রাবাদের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকেন এই দুই ব্যাটসম্যান। আইপিএলের অভিষেক ম্যাচেই হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন দেবদূত পাদিক্কেল। তবে দলীয় ৯০ রানের মাথায় জোড়া উইকেটে হারায় রয়েল চ্যালেঞ্জার্স। ৪২ বলে ৫৬ রান করে বিজয় শংকর এর বলে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন দেবদূত পাদিক্কেল।

পরের বলেই অ্যারন ফিঞ্চেরের উইকেট তুলে নেন অভিশেক শর্মা। ২৭ বলে ২৯ রান করে আউট হন তিনি। ব্যাট হাতে নেমে নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ১৩ বলে ১৪ রান করে নাতারাজনের বলে আউটে প্যাভিলিয়নে ফেরেন বিরাট কোহলি। তবে এদিন শেষের দিকে এসে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়েছে এবি ডি ভিলিয়ার্স। ৩০ বলে চারটি চার এবং দুটি ছক্কায় সাহায্যে ৫১ রান করে আউট হন তিনি। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটের হারিয়ে ১৬৩ রান সংগ্রহ করেছে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

১৬৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। যদিও দলীয় ১৮ রানের সময় রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ৬ রান করে রান আউট হন তিনি। তবে শুরুর চাপ ভালোভাবেই সামাল দেন দুই ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো এবং মনিশ পান্ডে।

দলকে নিশ্চিত জয়ের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন এই দুই ব্যাটসম্যান। তবে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন লেগ স্পিনার ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল। দলীয় ৮৯ রান এর সময় ৩৩ বলে ৩৪ রান করা মনিশ পান্ডেকে আউট করে ব্রেকথ্রু এনে দেন ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল।

দ্রুতই প্যাভিলিয়নে ফিরে যেতে পারতেন জনি বেয়ারস্টো। তবে দুইবার জীবন পাওয়ার পর দ্রুতগতিতে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি।তবে ম্যাচ তখনও হায়দ্রাবাদের হাতে ছিল যখন জনি বেয়ারস্টো উইকেটে ছিলেন। জনি বেয়ারস্টো আউট হওয়ার পর ছন্দ হারিয়ে বসে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। একের পর এক উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়ে তারা।

১২১ রানের মাথায় জোড়া ওইকেট তুলে নেন ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল। ৪১ বলে ৬ টিচার এবং দুটি ছক্কা সাহায্যে ৬৩ রান করে আউট হন জনি বেয়ারস্টো। পরের বলেই বিজয় শঙ্করকে আউট করে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়ে তোলেন ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল।

দলীয় ১২৯ রানের মাথায় প্রিয়াম গার্গ এবং দলীয় ১৩৫ রানের মাথায় অভিশেক শর্মা রান আউট হল আরো চাপে পড়ে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ । দলীয় ১৮ ওভারে জোড়া উইকেট তুলে নেন নভদ্বীপ সাইনি। ০ রানে ভুবনেশ্বর কুমার এবং ১৬ রান করা রশিদ খানকে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান তিনি। পরের ওভারেই ০ রানের মিচেল মার্শকে আউট করেন শিভাম দুবে। ১৯.৪ ওভারে ১৫৩ রানে অলআউট হয় হায়দ্রাবাদ।

ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল ১৮ রানে নেন ৩ উইকেট। শিভাম দুবে এবং নভদ্বীপ সাইনি ২ টি করে উইকেট লাভ করেন।