চীন-পাকিস্তানের সমর্থনে সৌদিকে সরিয়ে মুসলিম বিশ্বের নেতৃত্বের লড়াইয়ে এগিয়ে তুরস্ক

সৌদি আরবকে সরিয়ে ইসলামী বিশ্বের নেতৃত্বের জন্য ল’ড়া’ই করছে তুরস্ক। এতে চীন ও পাকিস্তানের সমর্থন রয়েছে। সম্প্রতি বিভিন্ন ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এমন প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সৌদি আরবকে ইসলামী বিশ্বের নেতৃত্ব থেকে সরাতে তুরস্কের প্রচেষ্টার প্রথম সংকে’তটি আসে গত বছর, যখন মালয়েশিয়া সৌদি নিয়’ন্ত্রিত অর্গা’নাইজে’শন অব ইসলামিক কো-অপারেশনকে (ওআইসি) দু’র্ব’ল করতে মুসলিম বিশ্বের আরো একটি ফ্রন্ট তৈরির জন্য কুয়ালালামপুর শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করে।

তুরস্কের রাষ্ট্রপ্রধান রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান কাশ্মীর বিষয়ে পাকিস্তানের পক্ষে কথা বলেছেন। ফিন্যান’শিয়াল অ্যাক’শন টা’স্কফো’র্সের (এফএটিএফ) সঙ্গে সং’ঘ’র্ষে ইসলামাবাদকে সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছেন। ফলে তুরস্কের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের অ’বন’তি ঘ’টেছে। তুরস্ক ও পাকিস্তান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নি’রবচ্ছি’ন্নভাবে একে অপরকে সমর্থন দিয়েছে। সাম’রিক ক্ষেত্রেও তারা একে অপরকে অনেক সহায়তা করে থাকে।

জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তুরস্ক তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য ইসলামিক স্টেটকে ব্যবহার করে। পশ্চিমা বাহি’নীর হা’ম’লার শি’কার বহু আইএস সদস্যদের আশ্রয় দিয়েছে তুরস্ক। এছাড়া সিরিয়া ও লিবিয়াতে অ’স্থি’রতার জন্য দা’য়ী তুরস্কই। একই প্রতিবেদনে দ্বৈ’ত আচ’রণের জন্য এরদোয়ানের স’মালো’চনা করা হয়। সংযুক্ত আরব আমিরাত ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করায় স’মালো’চনা করেছে তুরস্ক।

কিন্তু ইসরায়েলের সঙ্গে শুরুর দিকেই যেসব দেশ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে তার একটি হল তুরস্ক। দুই দেশের মধ্যে বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্যিক সম্পর্ক রয়েছে বলেও দাবি করা হয় প্রতিবেদনে। সূত্র : জিনিউজ