লাদাখে চিন সীমান্তের গা ঘেঁষে উড়ছে রাফাল

চিনের সঙ্গে সীমান্ত উ’ত্তেজনার আবহেই ভারতে এসে পৌঁছেছে পাঁচটি রাফাল যু’দ্ধবিমান৷ ইতিমধ্যেই আনুষ্ঠানিক ভাবে সেগুলিকে ভারতীয় বায়ুসেনার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে৷ চিন সীমান্তে প্রকৃত নিয়’ন্ত্রণরেখার গা ঘেঁষেই উড়ছে রাফাল৷ সেই ভি’ডিও-ই এবার সামনে এল৷ যে এলাকাগুলিতে রাফালকে ব্যবহার করা হবে, বায়ুসেনায় নতুন যুক্ত হওয়া অত্যাধুনিক যু’দ্ধবিমানগুলিকে সেই এলাকায় উড়িয়ে অভ্যস্ত করার প্রক্রিয়াই এখন চলছে৷

যদিও চিন সীমা’ন্তে উ’ত্তেজনার আবহে লাদাখে নিয়মিত রাফাল উড়িয়ে যে চিনকেও কড়া বার্তাই দিয়ে রাখা হচ্ছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না৷ ভি’ডিও-তে দেখা যাচ্ছে লাদাখে পাহাড়ে ঘেরা এলাকায় আকাশে চক্কর কাটছে রাফাল৷ এক এক সময় উচ্চতা কমিয়ে নীচের দিকে নেমে এসে ফের উপরে উড়ে যাচ্ছে ফাইটার জেট৷ লাদাখে আপা’তত ফরওয়ার্ড এয়ার বেসের উপরে রাফালকে ওড়ানো হচ্ছে৷

চিনের সঙ্গে সীমান্ত উ’ত্তেজনার আবহেই ভারতে এসে পৌঁছেছে পাঁচটি রাফাল যু’দ্ধবিমান৷ ইতিমধ্যেই আনুষ্ঠানিক ভাবে সেগুলিকে ভারতীয় বায়ুসেনার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে৷ কয়েকদিন আগে থেকেই লাদাখের আকাশে এই যু’দ্ধবিমানগু’লি উড়িয়ে বায়ুসেনার পাইলটদেরও আরও সড়গড় করে নেওয়া হচ্ছে৷ দুর্গম এই এলাকায় রাফাল বাস্তবে কতটা কার্যকর হবে, হাতেকলমে তারও আন্দাজ পেয়ে যাচ্ছে বায়ুসেনা৷

ইতিমধ্যেই ভারতের হাতে দশটি রাফাল যু’দ্ধবিমান তুলে দিয়েছে ফ্রান্স৷ তার মধ্যে পাঁচটি ভারতে এসে গেলেও ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটদের প্রশিক্ষণের জন্য বাকি পাঁচটি রাফাল এখনও ফ্রান্সেই রয়েছে৷ আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যেই আরও চার থেকে পাঁচটি রাফালের ভারতে এসে পৌঁছনোর কথা৷ বিশেষজ্ঞরা আগেই বলেছেন, রাফাল হাতে চলে আসায় ভারতীয় বায়ুসেনার শক্তি এক ধাক্কায় অনেকটাই বৃদ্ধি পাবে৷ যা চিনেরও যথে’ষ্ট উ’দ্বেগের কারণ৷

চিন এবং পাকিস্তান সীমান্তে যাতে জরুরি ভিত্তিতে রাফালগুলিকে দ্রুত পাঠানো সম্ভব হয়, সেই কারণেই আম্বালাকে রাফালের প্রধান ঘাঁটি হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে৷ চিন সীমান্তের কথা মাথায় রেখেই পশ্চিমবঙ্গের হাসিমারাকে রাফালের দ্বিতীয় ঘাঁটি হিসেবে বাছা হয়েছে৷-নিউজ১৮।