বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ নিয়ে নতুন মোড়

ফাইল ছবি

নানা নাটকীয়তা চলছে বাংলাদেশ-শ্রীলংকা টেস্ট সিরিজের নিয়ে। নিশ্চিত হওয়া এই সিরিজে এখন হুমকির মুখে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের শ্রীলঙ্কা সিরিজ নিয়ে আপত্তি থাকার পর নড়েচড়ে বসেছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। ১৫ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা সিরিজে না যাওয়ার ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

৬ দিন কেটে গেল এখনো বিসিবিকে কোনো আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দেয়নি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। এরই মধ্যে বেশ কয়েকবার শ্রীলংকা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং শ্রীলংকা সেনাবাহিনীর সাথে বৈঠকে বসেছে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড। তবে নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে শ্রীলংকা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। শ্রীলংকা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছে সিদ্ধান্ত পাল্টাচ্ছে না শ্রীলঙ্কা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে সিদ্ধান্ত জানাতে দেরি করছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড।

তবে শ্রীলঙ্কায় আরো একটি সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে বাংলাদেশ সিরিজ নিয়ে নতুন পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। কোয়ারেন্টাইন ইস্যুতে কিছুটা নমনীয় হলেও, এবার ভেন্যু নিয়ে ভিন্ন কথা বলছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড কর্তারা। শ্রীলংকার গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনটি টেস্টের জন্য তিনটি ভেন্যু নাম প্রস্তাব করেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের সহ-সভাপতি রাভিন ভিকরামাত্নে।

তবে এখনো শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা না দিলেও এটাই তাদের নতুন পরিকল্পনা বলে জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের সহ-সভাপতি। তিন টেস্টের জন্য ভেন্যু হিসেবে গল, পাল্লেকেলে এবং কলম্বোর নাম বাংলাদেশকে প্রস্তাব করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

গতকাল শ্রীলঙ্কান এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের সহ-সভাপতি রাভিন ভিকরামাত্নে বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে কতজন এখানে আসবেন, বিসিবি থেকে প্রস্তাবিত সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে আমরা সেই সিদ্ধান্ত জানাবো। এরপর তাদের সেটা পছন্দ হলে কোভিড-১৯ এর টাস্ক ফোর্সের নিয়ম অনুযায়ী কাজ করবো।

বাংলাদেশকে আমরা দুই ধাপে কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি জানিয়েছি। অন্তত সাতদিন তারা তাদের দেশেই কোয়ারেন্টিন পালন করবেন এবং তিনবার কোভিড টেস্টে উত্তীর্ণ হওয়ার পর শ্রীলঙ্কায় আসবেন। আমাদের এখানে আরো একবার তাদের টেস্ট করা হবে। নেগেটিভ আসারাই কেবল খেলায় অংশ নিতে পারবে।’

রাভিন ভিকরামাত্নে আরো বলেন, ‘আমরা তিনটি ম্যাচ আলাদা তিনটি ভেন্যুতে আয়োজন করতে চাই। আমরা ভেন্যুর বিষয়টিও জানিয়েছি তাদের। গল, পাল্লেকেলে এবং কলম্বো টেস্টের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। তবে এটা নিয়ে এখনও আলোচনা চলছে।’

ভেন্যু হিসেবে গল যুক্ত হলে, নিশ্চয় কিছুটা বাড়তি শক্তিই পাবে টাইগাররা। ২০১৩ সালে গলের ২২ গজেই যে মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে চেপে এসেছিলো দেশের ক্রিকেটের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। তবে সিরিজটা যে আলোর মুখ দেখছে এটাই সবচেয়ে জরুরি খবর।