স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে ফিলিস্তিনবাসীর পাশে থাকার ঘোষণা দিল কুয়েত

জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে ফিলিস্তিনবাসীর পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে কুয়েত। গতকাল সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সাপ্তাহিক বৈঠক শেষে এক সংবাদ বি’জ্ঞপ্তিতে এ খবর জানায় কুয়েত ক্যাবিনেট। ফিলিস্তিনের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে কুয়েতের সংবাদ মাধ্যম আল কাবাস-এ বলা হয়, ‘ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আমাদের প্রধান ইস্যু। এটি আরব ও মুসলিমদের প্রধান ইস্যু।’

ক্যাবিনেটের পক্ষ থেকে আরো বলা হয়, ‘আন্তর্জাতিক আইন, আরব পিস ইনিশিয়েটিভের আলোকে ১৯৬৭ সালের ৪ জুনের সীমারেখায় জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন করে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানে আগ্রহী কুয়েত।’ গত সোমবার কুয়েতের ৪১টি প্রতিষ্ঠান সংসদ অধিবেশন ডেকে ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ককে ‘অপরা’ধ’ হিসেবে একটি আইন পাস করে।

প্রতিষ্ঠানগুলো এক যৌথ বিবৃতিতে বলে, ‘কুয়েতের স্বাধীন জনগণের সঙ্গে একাত্ম’তা পোষণ করে আমরা একটি সংসদ অধিবেশনের ডাক দিই। যেন সরকার দ্রু’ততর সময়ে ইহুদিবাদী শ’ত্রুদের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপনকে অপরা’ধ হিসেবে আইন পাস করে।’ বিবৃতিতে বলা হয়, ‘কুয়েত সরকার ও জনগণের সঙ্গে সংগতি রেখে কুয়েতের বিরু’দ্ধে সব প্র’চেষ্টাকে আমরা প্র’ত্যাখ্যা’ন করি।’

তাতে আরো বলা হয়, ‘কুয়েত ফিলিস্তিন ইস্যুর ন্যায্য সমাধানে সব ধরনের প্রচেষ্টা ও সহায়তা প্রদান করে। শরণার্থীদের প্র’ত্যাবর্তন ও দ’খলদারির অবসান করে ফিলিস্তিনবাসীর সংক’ট নিরসনে ভূমিকা রাখে কুয়েত।’ গত শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদপত্র দ্য ওয়াল স্ট্রিট এক প্র’তিবেদনে জানায়, “কুয়েত আমিরের পুত্র শেখ নাসের সাবাহ আল আহমদ আল জাবের আল সাবাহর সঙ্গে বৈঠক করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘কুয়েত ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক করা পরবরর্তী রাষ্ট্র হতে পারে’।”

গত ১৫ সেপ্টেম্বর ট্রাম্পের পৃষ্ঠপোষকতায় হোয়াইট হাউসে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্কের চুক্তি স্বাক্ষর করে আরব আমিরাত ও বাহরাইন। সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি ও আল কাবাস।