কি হবে দেশে আটকে পড়া সৌদি প্রবাসীদের?

দ্রুত সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেটের দাবিতে বিক্ষো’ভরত আট’কেপড়া প্রবাসীদের ধৈর্য্য ধারণের আহবান জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী। জটিলতা নিরসনে সৌদি কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা চলছে বলেও জানান তিনি। এই প্রবাসী কর্মীদের ভিসা এবং আকামার মেয়াদ শেষ হবে ৩০ সেপ্টেম্বর।

লক্ষাধিক সৌদি প্রবাসী টিকেট সংগ্রহের জন্য ছুটছেন সৌদি এয়ারলাইন্স অফিস ও সংশ্লিষ্ট ট্রাভেলস এজে’ন্সিগুলোতে। টিকেট না পেয়ে সড়কে বিক্ষো’ভ করেছেন তারা।প্রবাসী কর্মিরা জানান, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাদের সৌদি পৌঁছাতেই হবে। এর ব্যতিক্রম হলে চাকরি হারিয়ে বেকার হয়ে পথে বসতে হবে তাদের।

কারণ হিসেবে জানান, এ মাসের মধ্যে তাদের ভিসা এবং আকামার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। প্রবাসী কর্মীরা জানান, ৩০ তারিখের মধ্যে যেতে হবে। এর মধ্যে যদি যেতে না পারি তাহলে আকামার মেয়া’দোত্তীর্ণ হয়ে যাবে। আমাদেরকে বলা হয় রেমিটেন্সযো’দ্ধা কিন্তু প্রবাসে যেতে আমাদেরকে কেন এইভাবে যু’দ্ধ করতে হবে। দেখার কি কেউ নেই।

আরেক কর্মী জানান, বিমান অফিসে গিয়েছি, টিকেট নাই পয়সা চায়। ১ লাখ ২০ হাজার টাকা যাচ্ছে। আবার সি’ন্ডিকেট করে বাইরে টিকেট দিয়ে দিয়েছে, তারা দেড় লাখ টাকা যাচ্ছে। পরে বিক্ষো’ভকারীদের প্রতিনিধিরা বৈঠক করেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর সাথে। বৈঠকে সকলকে ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, প্রবাসীদের অবস্থা দেখে ওদেরকে বলেছি- যত ফ্লাইট ছাড়তে পারো তুমি দাও। বিমানকে না দিলেও আমরা কিন্তু সাউদিয়া ফ্লাইট অ্যালাউ করবো। আমরা কোন বাধা দিব না, কোন লিমিট দিব না। দ্রুত সমস্যার সমাধান দাবি করেছেন বিক্ষু’ব্ধ সৌদি প্রবাসীরা।