কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে বিশাল ব্যবধানে জয় তুলে নিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএল আজ কলকাতা নাইট রাইডার্স কে ৫১ রানে হারিয়ে আসরের প্রথম জয় তুলে নিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। অধিনায়ক রোহিত শর্মার ৮০ রানের উপর ভর করে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৯৬ রানের বিশাল টার্গেট দেয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৬ রান সংগ্রহ করে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএল আজকের ম্যাচে (বুধবার) মুখোমুখি হয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এবং কলকাতা নাইট রাইডার্স। শুরুতেই টসে জিতে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় কলকাতা নাইট রাইডার্স এর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই কুইন্টন ডি ককের উইকেট তুলে নেন শিবাম মাভি।

তবে এরপরে ব্যাটিং তাণ্ডব চালানো অধিনায়ক রোহিত শর্মা এবং সূর্যকুমার যাদব। একের পর এক বল বাউন্ডারির বাইরে আর বল কুড়িয়ে আনতে আনতে ব্যস্ত সময় পার করলেন কেকেআর ফিল্ডাররা। ৯০ রানের বিধ্বংসী এক জুটি গড়ে উঠলো এই দু’জনের ব্যাটে।

যাদব আউট হলেও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন রোহিত শর্মা। তার ব্যাটে ভর করে শেষ পর্যন্ত মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের স্কোর গিয়ে দাঁড়ালো ১৯৫ রানে। ১৯৬ রানের বিশাল এক লক্ষ্যই কেকেআরের সামনে বেধে দিয়েছে বলা যায়।

৫৪ বল খেলে ৮০ রান করে আউট হয়েছেন রোহিত শর্মা। ৩টি বাউন্ডারির সঙ্গে ছক্কা মেরেছেন ৬টি। ২৮ বলে ৪৭ রান করে আউট হন সুর্যকুমার যাদব। ৬টি বাউন্ডারির সঙ্গে ১টি ছক্কার মার মেরেছেন তিনি। সৌরভ তিওয়ারি করেন ২১ রান। হার্দিক পান্ডিয়া করেন ১৮ রান। কাইরন পোলার্ড করেন অপরাজিত ১৩ রান।

আইপিএলের সবচেয়ে দামি বোলার অস্ট্রেলিয়ান পেসার প্যাট কামিন্স যারপরনাই হতাশ করেছেন। ৩ ওভার বোলিং করে তিনি দিয়েছেন ৪৯ রান। ওভার পিছু ১৬.৩৩ রান করে। অথচ উইকেটের খাতা শূন্য। ১টি করে উইকেট নেন সুনিল নারিন এবং আন্দ্রে রাসেল।

১৯৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৫ রানের মাথায় ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স। ৭ রান করা ওপেনার ব্যাটসম্যান শুবমান গিলের উইকেট তুলে নেন ট্রেন্ট বোল্ট এবং ৯ রান করা সুনীল নারায়নের উইকেট তুলে নেন জেমস প্যাটিনসন। তবে এরপর কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক এবং নিতেশ রানা।

তাদের দুইজনের ৪৬ রানের পার্টনারশিপ ভাঙ্গেন রাহুল চাহার। ২৩ বলে পাঁচ টিচারের সাহায্যে ৩০ রান করে আউট হন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। দ্রুতই নিতেশ রানা উইকেট তুলে নেন কেরন পোলার্ড।‌ ১৮ বলে ২৪ রান করে আউট হন তিনি। চাপে পড়া দলকে টেনে তুলতে ব্যর্থ হন আন্দ্রে রাসেল।

দলীয় ১০০ রানের মাথায় জাসপ্রিত ভোমরার বলে ১১ বলে ১১ রান করে বোল্ড আউট হন রাসেল। দ্রুতই প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ইয়ান মরগান এবং নিখিল নায়েক। জাসপ্রিত ভোমরার বলে ২০ বলে ১৬ রান করে আউট হন মরগান।

এবং নিখিলের উইকেট তুলে নেন ট্রেন্ট বোল্ট। তবে শেষের দিকে কিছুটা ব্যাটিং তান্ডব চালিয়ে হারের ব্যবধানটা কমিয়েছেন প্যাট কামিন্স। ১১ বলে ১ টি চার এবং ৪ টি ছকাকার সাহাস্যে ৩৩ রান করে জেমস প্যাটিনসনের বলে অাউট হন তিনি। জাসপ্রিত ভোমরা (২), জেমস প্যাটিনসন (২) , এবং ট্রেন্ট বোল্ট (২) করে উইকেট লাভ করেন।