অন্যরা যখন হাসিঠাট্টা করত বাংলাদেশের পক্ষে দাঁড়াতেন ডিন জোন্স

ক্রিকেটবিশ্বে ওয়ানডেতে বাংলাদেশ এক প্রতিষ্ঠিত শক্তি। একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশকে বলে হারানো যেত। যা এখন দুঃস্বপ্ন। ওই সময় বীরেন্দ্র শেবাগের অর্ডিনারি দল থেকে শুরু করে বহু সাবেক ক্রিকেটার বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে একসময় হাসিঠাট্টা করতেন। সে সময় বাংলাদেশের পক্ষে ব্যাট ধরেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক তারকা ক্রিকেটার তথা জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ডিন জোন্স। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এই শুভাকা’ঙ্খী গতকাল বৃহস্পতিবার হুট করেই হৃ’দরোগে আক্রা’ন্ত হয়ে মা’রা গেছেন।

২০১৫ সালে জঙ্গি হানার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সফর বাতিল করেছিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। তখন খুব সমালোচনা হয়। ডিন জোন্স তখন সিডনি মর্নিং হেরাল্ডে লিখেছিলেন, জঙ্গির ভয়ে নয়, প’রাজয়ের ভয়ে বাংলাদেশ সফর বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া। কারণ উপমহাদেশে অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ড খুব খারাপ। তাছাড়া বাংলাদশ দল এখন অনেক উন্নতি করেছে এবং তারা অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর ক্ষমতা রাখে। ২০১৭ সালের আগস্টে সেই সফরে রাজি হয় অস্ট্রেলিয়া।

তখন বাংলাদেশ দারুণ ধারাবাহিক পারফর্মেন্স করে যাচ্ছিল। ডিন জোন্স তখন অজিদের সতর্ক করে বলেন, আগস্টে বাংলাদেশকে হারাতে হলে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে তাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে, না হলে তারা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কাছে হার’বে নিশ্চিত। সেই সিরিজে টাইগাররা ইতিহাস গড়েছিল। বাংলাদেশের কাছে প্রথমবারের মতো টেস্টে হেরে গিয়েছিল পরাক্রমশালী অস্ট্রেলিয়া।

২০১৭ চ্যম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। ৩৩ রানে ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর সাকিব-মাহমুদউল্লাহর অবিশ্বাস্য জুটিতে ২৬৫ রান চেজ করা সম্ভব হয়েছিল। সেই ম্যাচের পর টুইটারে ডিন জোন্স লিখেছিলেন, ৩৩ রানে ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার ২৬৫ রান চেজ করাটা। সাকিব যে বন্দুকের মতো তাতে সন্দেহ নেই। তবে আমি সবসময় মাহমুদউল্লাহকেও কৃতিত্ব দিতে চাই।

গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের একটি লাল রংয়ের জার্সি ছিল। সেটি পরে একটিমাত্র ম্যাচই (পাকিস্তানের বিপক্ষে) খেলেছে টাইগাররা। সেই জার্সিকে বিশ্বকাপের সেরা ঘোষণা করেছিলেন ডিন জোন্স। টুইটারে লিখেছিলেন, আজ আমার সবচেয়ে ভালো লাগছে কী? আমার মনে হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের লাল টিশার্ট, এবারের বিশ্বকাপের সেরা দলীয় টিশার্ট।

এভাবে সবসময় বাংলাদেশের ক্রিকেটের পাশে থেকেছেন, উৎসাহ দিয়েছেন ডিন জোন্স। ধারাভাষ্যকার হিসেবেও বাংলাদেশে তিনি জনপ্রিয় ছিলেন। তার জীবনটা জুড়ে ছিল শুধু ক্রিকেট। ডিন জোন্সের মৃ’ত্যু তাই ক্রিকেটবিশ্বের জন্যই ক্ষ’তি।