মোদী ম্যাজিকেই কি জোড়া ক্যাচ মিস, ১ রান করে আউট কোহলি?

কিংস ইলেভন পঞ্জাবের বিরু’দ্ধে একেবারে পরিচিত বিরাট কোহলির দেখা মেলেনি। গত বৃহ্স্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ভি’ডিয়ো কনফারে’ন্সে কথা বলেছিলেন। তারপর সন্ধ্যায় কিংস ইলেভন পঞ্জাবের বিরু’দ্ধে একেবারে পরিচিত বিরাট কোহলির দেখা মেলেনি। দু’বার ক্যাচ ফস্কেছেন। ব্যাট হাতেও দলকে ভরসা জোগাতে পারেননি। মাঠে সেই খারাপ দিনের জন্য কং’গ্রেসের তরফে খোঁচা দেওয়া হল মোদীকে।

সর্বভারতীয় কংগ্রে’সের সোশ্যাল মিডিয়ার চেয়ারম্যান রোহন গুপ্ত টুইটারে বলেন, ‘কোহলি দুটি সহজ ক্যাচ ফেলে দিলেন এবং মাত্র এক রান করেই আউট হয়ে গেলেন! মোদী ম্যাজিক?’ ‘ফিট ইন্ডিয়া মুভমেন্ট’-এর এক বছর পূর্তিতে বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন ক্রীড়া’বিদদের সঙ্গে ভি’ডিয়ো কন’ফারেন্স করেন মোদী। সেখানে ছিলেন কোহলিও। পরে সন্ধ্যায় কিংস ইলেভনের বিরু’দ্ধে মাঠে নামেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যা’ঙ্গালোরের (আরসিবি) অধিনায়ক।

কিন্তু তারপর সময় একেবারেই ভালো কাটেনি তাঁর। ১৭ তম ওভারে ডিপ স্কোয়ার লেগে ম্যাচের শুরু থেকেই বিধ্বং’সী ফর্মে থাকা কে এল রাহুলের ক্যাচ ফস্কান বিরাট। তখন ৮৩ রানে ছিলেন রাহুল। পরের ওভারেই আবারও কোহলির সৌজন্যে জীবনদান পান পঞ্জাব অধিনায়ক। তখন তিনি ৮৯ রানে ছিলেন। শেষপর্যন্ত ১৩২ রানে অপরা’জিত থাকেন রাহুল। যা ভারতীয়দের মধ্যে আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ স্কোর। এমনকী শেষ ওভারেও ২০ রান তোলেন রাহুল। তাঁর সৌজন্য বিরাটদের বিরু’দ্ধে ২০৬ রান তোলে পঞ্জাব।

ব্যাট করতে নেমেও কোহলির ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয়নি। আবারও এক বাঁ-হাতি বোলারের শিকার হন তিনি। শেলডন কটরেলের বলে মাত্র এক রান করেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন। সেই সময় ব্যাঙ্গালোরের স্কোর ছিল তিন উইকেটে ৪ রান। তারপর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি কোহলি ব্রিগেড। ১৭ ওভারে ১০৯ রানেই গুটিয়ে যায় আরসিবি ইনিংস।-হিন্দুস্থান টাইমস।