সামনে মহাবিপদ অপেক্ষা করছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

করোনা থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় সবার এক সাথে লড়াই করা। আর তা না হলেই মহাবিপদ অপেক্ষা করছে আমাদের সামনে। আগামী দিনে দ্বিগুণ হতে পারে করোনায় মৃ’ত্যুর সংখ্যা। এমনটি আশ’ঙ্কা করছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরুরি বিভাগের কর্মকর্তা। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) এক ভার্চুয়াল সাংবাদিক বৈঠকে এমনই সত’র্কবার্তা দিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরুরি বিভাগের কর্তা মাইক রায়ান।

মাইক রায়ান বলছেন, মহামা’রি করোনার প্রকোপে বিশ্বজুড়ে ইতিমধ্যেই প্রায় ১০ লাখ মানুষের মৃ’ত্যু হয়েছে। আমরা যদি এখনই সম্মিলিত হয়ে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ না করি, তাহলে আগামী দিনে এই মৃ’তের সংখ্যাটা ২০ লাখে পৌঁছে যেতে পারে।

চীন করোনা ভাই’রাসের বি’পদ নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে স’তর্ক করেছিল ঠিক ৯ মাস আগে। চীনের সত’র্কতা বার্তা পাওয়ারও বেশ কিছুদিন পর ৩০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জনস্বাস্থ্য জরুরি সতর্কতা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এর মধ্যে বহু ঢিলেমির অভি’যোগ উঠেছে। আমেরিকা অভি’যোগ করেছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গা’ফিলতির কারণে করোনা আজ মহা’মারির আকার নিয়েছে।

আবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি করেছে, আমেরিকা-সহ বহু দেশ তাদের দেওয়া সতর্কবা’র্তাকে গুরুত্ব দেয়নি। কারণ যাই হোক, করোনা আজ বিশ্বব্যাপী ত্রা’স সৃষ্টি করেছে। বিশ্বজুড়ে এর কবলে পড়েছেন ৩ কোটি ৩৪ লাখের ও বেশি মানুষ। আর করোনায় আক্রা’ন্ত হয়ে মৃ’ত্যু হয়েছে প্রায় ১০ লাখ মানুষের।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, বি’পদ এখনও বাকি আছে। এই মহামা’রি থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় স্বা’স্থ্যবিধি মেনে চলা। যেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে, সেখানে সংক্র’মণ কমছে। যেখানে মানা হচ্ছে না, সেখানে বাড়ছে। আমাদের এখন সম্মিলিতভাবে এই ভাই’রাস রু’খে দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। সেটা যদি না করা যায় তাহলে বিপদ আসন্ন।

মাইক রায়ান শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভার্চুয়াল সভায় বলেন, ‘১০ লাখ সংখ্যাটা ভ’য়াবহ। এই মৃ’তের সংখ্যাটা আরও ১০ লাখ পূর্ণ হওয়ার দিকে পা বাড়ানোর আগে আমাদেরই ফিরে দেখা উচিত, এই মহামা’রি রুখতে আমরা কতটা কার্যকরী ভূমিকা নিয়েছি। আমরা কি সত্যিই এই ভ’য়াবহতা এড়ানোর জন্য প্রস্তুত?’

আর যদি সত্যিই আমরা সম্মিলিতভাবে পদক্ষেপ করার প্রস্তুতি না নিয়ে থাকি, তাহলে মৃ’তের সংখ্যাটা অনেক অনেক বেশি হবে। ২০ লাখ হওয়ার সম্ভাবনাটা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। বিগত ৯ মাসে আমরা ১০ লক্ষ মানুষকে হারিয়েছি। আগামী ৯ মাস ভ্যা’কসিনের জন্য অপেক্ষা না করে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে বলে সবাইকে তিনি আহ্বান জানান।