তুরস্কের সহায়তায় আর্মেনিয়ার গুরুত্বপূর্ণ পাহাড় দখলে নিলো আজারবাইজান

আর্মেনিয়ার বিদ্রো’হীদের কাছ থেকে বিরো’ধপূর্ণ নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলের কৌ’শলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি পাহাড় দ’খলের দা’বি করেছে আজারবাইজান। রবিবার উভয় দেশের সেনাদের মধ্যে সং’ঘা’ত শুরু হওয়ার পর এই দ’খলের দাবি করা হলো। এই পাহাড়টি ইয়েরেভান ও আর্মেনিয়াদের নিয়’ন্ত্রিত ছিটমহলে যোগাযোগ র’ক্ষায় সহযোগিতা করে।

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের মুখপাত্র হিকমেত হাজিয়েভ সাংবাদিকদের বলেন, ”আমাদের সেনারা ৩ হাজার মিটার উঁচু কৌ’শলগত মুরোভডাগ চূড়া দ’খ’ল করেছে।” মধ্য এশিয়ার দুই বৈরী প্রতিবেশী আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে রবিবার যু’দ্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। বিত’র্কি’ত নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে এই সং’ঘা’তের জন্য একে অপরকে দা’য়ী করছে উভয় দেশ। সং’ঘা’তের কারণে বহু হ’তাহ’তের আ’শ’ঙ্কা করা হচ্ছে।

নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আর্মেনিয়া-আজারবাইজানের মধ্যে দী’র্ঘদিন ধ’রে সং’ঘা’ত চলছে। অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের বলে স্বীকৃত কিন্তু নিয়’ন্ত্রণ করে আর্মেনিয়ান জাতিগোষ্ঠী। দুই দেশের মধ্যকার সং’ঘা’ত গত কয়েক মাস ধ’রে ভ’য়াব’হ আকার ধা’রণ করেছে। জুলাইতে আজারবাইজান-আর্মেনিয়া সীমান্তে ব্যা’পক সং’ঘা’ত হয়। এতে উভয়পক্ষের ১৭ সেনা নি’হ’ত হন।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান এক ফোনালাপে চলমান পরি’স্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন। রবিবার এক বিবৃতিতে এই ত’থ্য জানিয়েছে রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উত্তে’জনা বাড়তে না দেওয়া এবং সব সাম’রিক পদক্ষেপ স্থ’গিত রাখা গুরুত্বপূর্ণ বলে তাদের আলোচনায় উল্লেখ করা হয়েছে।

সং’ঘা’ত শুরু হওয়ার পর আর্মেনিয়া সরকার মা’র্শাল জা’রি করে এবং সেনাদের প্রস্তুত হওয়ার নি’র্দে’শ দিয়েছে। এক বিবৃতিতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ান বলেন, ‘আমাদের পবিত্র মাতৃভূমিকে র’ক্ষার জন্য প্রস্তুত হোন।’ এছাড়া আজারবাইজানের সঙ্গে চল’মান সং’ঘ’র্ষে হ’স্তক্ষে’প না করতে তুরস্ককে স’ত’র্ক করেছেন আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এই সং’ঘা’তে যাতে তুরস্ক জড়িয়ে না পড়ে তা নি’শ্চি’ত করার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। এদিকে, আর্মেনিয়ার আ’গ্রা’সনের নি’ন্দা না জানিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় আবারো নিজেদের দ্বৈ’তচ’রিত্র দেখিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। আর্মেনিয়াকে স’ন্ত্রা’সী রাষ্ট্র আখ্যা দিয়ে দেশটিকে আঞ্চলিক স্থি’তিশী’লতার জন্য হু’মকি বলে অভি’হিত করেন তিনি। পাশাপাশি আজারবাইজানকে সবধ’রনের সহায়তা অ’ব্যাহ’ত রাখার প্র’তিশ্রু’তি পু’নর্ব্য’ক্ত করেন এরদোয়ান।

সূত্র: আল জাজিরা