মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে

দেশের মিলগেটে মিনিকেট চাল ও মাঝারি চালের সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) চালকল মালিক, পাইকারি ও খুচরা চাল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলোচনা শেষে এমন সিদ্ধান্ত হয়। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে এ দাম কার্যকর হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে ১০ দিনের মধ্যে সরু চাল আমদানি করা হবে। একইসঙ্গে ভোক্তা অধিকার আ’ইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কোনোক্রমেই আগামী একমাস (অক্টোবর) চালের দাম বাড়ানো যাবে না বলে জানিয়েছে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। খাদ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মিলগেটে ৫০ কেজির প্রতি বস্তা মিনিকেট চাল সর্বোচ্চ ২৫৭৫ টাকা ও মাঝারি মানের আটাশ চাল ২২৫০ টাকা দরে বিক্রি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, পাইকারিতে প্রতিকেজি চাল ৪৩ থেকে ৪৫ টাকা। এর ব্যত্যয় হলে ১০ দিনের মধ্যে সরু চাল আমদানি করা হবে। মোটা চাল পর্যাপ্ত মজুদ আছে।

কিন্তু এখন মানুষ মোটা চাল খায় না। যারা খায় তাদের জন্য ওএমএস (ওপেন মার্কেট সেল) ও খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে দিচ্ছি। আড়তদার ও খুচরা বাজারের দামটা কৃষি বিপণন ও ভোক্তা অধিকার নির্ধারণ করে দেবে। প্রতিদিন তারা সকালে এটা নির্ধারণ করে থাকে।

তিনি বলেন, অ’বৈধ মজুদদারদের বিরু’দ্ধে মোবাইল কো’ট শুরু হয়েছে। এসময় মিলমালিকরা বলেন, আপাতত পুলিশ পাঠাইয়ে না। আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।-সময় নিউজ।