রিফাত হ’ত্যা মা’মলার রায় আজ

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হ’ত্যা মা’মলার প্রাপ্ত বয়স্ক ১০ আসা’মির রায় ঘোষণা আজ। রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ সব আসা’মির সর্বোচ্চ শা’স্তির দাবি জানিয়েছে রিফাতের পরিবার। তবে মিন্নিকে নির্দো’ষ দাবি করে ন্যায় বিচা’রের প্রত্যাশা তার পরিবারের। আর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা বলছেন, আসা’মিদের সর্বো’চ্চ শা’স্তির মাধ্যমে মাইলফলক হয়ে থাকবে এই রায়। করো’নার কারণে ১৬৭ দিন পিছিয়ে যায় বিচার কাজ। সব মিলিয়ে হ’ত্যাকা’ণ্ডের ৪৬১ দিন পর দেয়া হচ্ছে রায়।

২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কু’পিয়ে হ’ত্যা করে স’ন্ত্রা’সীরা। হ’ত্যাকা’ণ্ডের ভি’ডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হয়। প্রকাশ্যে এমন হ’ত্যাকা’ণ্ডের পর পুলিশের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনার মধ্যে ২ জুলাই গো’লাগু’লিতে মা’রা যায় অন্যতম আ’সামি নয়ন বন্ড। এর ১৪ দিন পর মা’মলার মূল সাক্ষী রিফাতের স্ত্রী মিন্নিকে গ্রে’প্তার করে পুলিশ।

গ্রে’প্তার হয় মাম’লার অন্য আ’সামিরাও। হ’ত্যার দায় স্বীকার করে আদা’লতে জবানবন্দি দেয় স্ত্রী মিন্নিসহ আসা’মিরা। এবছরের পয়েলা জানুয়ারি হ’ত্যাকা’ণ্ডে সরাসরি জ’ড়িত থাকার অভিযো’গে রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ৭ জন এবং আ’সামিদের পালাতে সহায়তার অভি’যোগে ৩ জনের বিরু’দ্ধে চার্জশিট দেয় পুলিশ। তবে, মিন্নি সম্পূর্ণ নি’র্দোষ বলে দাবি পরিবারের। প্রাপ্তব’য়স্ক ১০ আসা’মির বিরু’দ্ধে ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে শেষ হয় ৭৬ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ। দো’ষীদের সর্বো’চ্চ শা’স্তি চায় নি’হত রিফাতের পরিবার।

মাম’লার এক আ’সামি মুসা এখনো প’লাতক। অন্যদিকে অপ্রা’প্তবয়’স্ক ১৪ আ’সামির মধ্যে ৮ জন জা’মিনে ও ৬ জন কিশোর অপরা’ধ সংশো’ধনাগারে রয়েছে।-ইন্ডিপেন্ডেন্ট নিউজ