আর্মেনিয়ার যু’দ্ধবিমান ধ্বং’স করল তুরস্ক?

রোববার বিত’র্কিত নাগর্নো-কারাবাখ নিয়ে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে যু’দ্ধ শুরু হয়েছিল। মঙ্গলবার তাতে তুরস্ক অংশ নিয়েছে বলে আর্মেনিয়ার অভিযো’গ। তুরস্ক তাদের যু’দ্ধবিমান ধ্বং’স করেছে। নি’হত হয়েছেন পাইলট। আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যু’দ্ধে এ বার সরাসরি তুরস্কের দিকে আঙুল তুলল আর্মেনিয়া। তুরস্ক অবশ্য তাদের এই দাবি ন’স্যাৎ করে দিয়েছে। তুরস্ক এবং আজারবাইজান দুই তরফই জানিয়েছে, স’স্তা প্রোপাগা’ন্ডার জন্যই এ ভাবে তুরস্ককে দো’ষী সাব্য’স্ত করার চেষ্টা করছে আর্মেনিয়া।

অন্য দিকে সোমবারের পরে মঙ্গলবারও যু’দ্ধ অ’ব্যাহত প্রতিবেশী দুই দেশের। অভি’যোগ, আর্মেনিয়া আজারবাইজানের একটি সীমান্ত অঞ্চলে শেলিং করেছে। অন্য দিকে আজারবাইজানও আর্মেনিয়ার একটি অঞ্চলে গু’লি চালিয়েছে এবং বাসে আ’গুন ধরিয়ে দিয়েছে বলে অভি’যোগ। মঙ্গলবার দুই দেশের মধ্যে সংঘ’র্ষের শিকার হয়েছেন ১২ জন সাধারণ মানুষ। আহ’ত ৩৫। সোমবারই আর্মেনিয়া অভি’যোগ করেছিল, তুরস্ক সরাসরি আজারবাইজানকে যু’দ্ধে সাহায্য করছে। তুরস্ক পাল্টা উত্তর দিয়ে বলেছিল, বিত’র্কিত অঞ্চল আজারবাইজানের। আর্মেনিয়া বেআ’ইনি তা দখল করে রেখেছে। মঙ্গলবার ফের তুরস্কের দিকে আঙুল তুলল আর্মেনিয়া।

অভিযো’গ, আর্মেনিয়া বায়ুসেনার একটি এসইউ২৫ যু’দ্ধবিমান তুরস্ক ধ্বং’স করেছে। তুরস্কের এফ ১৬ যু’দ্ধবিমান আকাশেই আর্মেনিয়ার যু’দ্ধবিমান ধ্বং’স করেছে বলে অভিযো’গ। বিবৃতি দিয়ে আর্মেনিয়ার সরকার এ খবর জানিয়েছে। বলা হয়েছে, ঘটনায় যু’দ্ধবিমানের পাইলট নি’হত হয়েছেন। তুরস্ক অবশ্য আর্মেনিয়ার এই অভি’যোগ উড়িয়ে দিয়েছে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এর্দোয়ানের মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তুরস্ক এই যু’দ্ধে অংশ নেয়নি। ফলে আর্মেনিয়ার যু’দ্ধবিমান ধ্বং’স করার প্রশ্নই ওঠে না। এটা একান্তই আর্মেনিয়ার মি’থ্যা প্রোপা’গান্ডা।

বস্তুত আজারবাইজানও আর্মেনিয়ার দাবি নস্যা’ৎ করে দিয়েছে। তারাও তুরস্কের মতোই বলেছে, আর্মেনিয়া মি’থ্যা প্রোপা’গান্ডা করে বিশ্বের নজর কাড়তে চাইছে। তুরস্ক অবশ্য এ দিনও জানিয়েছে, বিত’র্কিত অঞ্চল বেআ’ইনি ভাবে আর্মেনিয়া দখল করে রেখেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের একাধিক দেশ, রাশিয়া, চীন সকলেই আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের সাম্প্রতিক যু’দ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু যুযুধান দুইপক্ষ এখনও পর্যন্ত তাতে কান দেয়নি।

আর্মেনিয়া মঙ্গলবারও দাবি করেছে, আজারবাইজান দীর্ঘদিন ধরেই এই যু’দ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তারা চাইছিল যু’দ্ধ হোক। আজারবাইজান গত কয়েক বছর ধরে বিপুল পরিমাণ যু’দ্ধের সর’ঞ্জাম কিনেছে। ড্রো’নের সাহায্যে সীমান্তে যু’দ্ধের প্রস্তুতিও তারা আগেই নিয়েছে। মঙ্গলবার আজারবাইজানের প্রতিরক্ষামন্ত্রক জানিয়েছে সীমান্তে দাসকেশান অঞ্চলে শেলিং করেছে আর্মেনিয়ার সেনা। অন্য দিকে আর্মেনিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রক জানিয়েছে সীমান্তে ভারদেনি অঞ্চলে গু’লি চালিয়েছে আজারবাইজানের সেনা।

একটি বাসে আ’গুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাতে একজন সাধারণ মানুষের মৃ’ত্যু হয়েছে। গত দুই দিনে সাধারণ মানুষের নিহ’ত হওয়ার সংখ্যা লাফিয়ে বেড়েছে। এ ভাবে দুই দেশের মধ্যে যু’দ্ধ চলতে থাকলে আরও মানুষের মৃ’ত্যু হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: ডয়চে ভেলে।