আদা’লত থেকে বেরিয়ে রিফাত ফরাজি বললেন ‘সব আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিলাম’

বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হ’ত্যা মাম’লায় ফাঁ’সির দ’ণ্ডপ্রাপ্ত আ’সামি মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী রায়ের পর হাসতে হাসতে আদা’লত থেকে বেরিয়ে প্রিজনভ্যানে ওঠেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘আমরা সব আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিলাম। অতীতে যা হয়েছে তা আল্লাহ করেছেন আর ভবিষ্যতে যা হবে সেটাও আল্লাহই করবেন।’

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে আদা’লত থেকে আ’সামিদের কা’রাগারে নেয়ার সময় প্রিজনভ্যানে ওঠার মুহূর্তে এসব কথা বলেন রিফাত ফরাজি। তবে আশপাশের শব্দের কারণে তার বাকি বক্তব্য স্পষ্ট শোনা যায়নি। এ সময় শুধু আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন ব্যতীত বাকি সাজাপ্রা’প্তরা স্বাভাবিক ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরগুনার আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত (রিফাত শরীফ) হ’ত্যা মা’মলায় তার স্ত্রী আয়শাসিদ্দিকা মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁ’সির নি’র্দেশ দেন আদা’লত। বাকি চার আসা’মিকে খা’লাস দিয়েছেন। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমা’না করেছেন আ’দালত। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামানের আ’দালত এ রায় ঘোষণা করেন।

ফাঁ’সির দ’ণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মো. রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৪), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২২), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (২০), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিক’টক হৃদয় (২৩), মো. হাসান (২০) ও নিহ’তের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (২০)। আসা’মিদের মধ্যে মো. মুসা পলা’তক আছেন। মুসা ছাড়া অন্য আসা’মিদের উপস্থিতিতেই এ রায় ঘোষণা করা হয়।

এছাড়াও মাম’লার অপর চার আ’সামি রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২১), মো. সাগর (২০), মো. মুসা (২৩) ও কামরুল ইসলাম সাইমুনকে (২২) খালাস দেওয়া হয়েছে। রিফাত হ’ত্যা মা’মলার এক নম্বর আ’সামি নয়ন বন্ড (২৫) বন্দুকযু’দ্ধে নিহ’ত হওয়ায় তাকে চার্জশিটেই মা’মলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আসা’মিদের মধ্যে রিফাত ফরাজী আদা’লতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

একই ঘটনায় অপ্রা’প্তবয়স্ক ১৪ আ’সামি যশোরে কিশোর সংশো’ধনাগারে আছে। শিশু আদা’লতে তাদের বিচার চলছে।