রাশিয়ার মধ্যস্থতা মানছে না আর্মেনিয়া-আজারবাইজান

বি’ত’র্কি’ত নাগোরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে চলমান সং’ঘা’ত নির’সনে আলোচনার জন্য রাশিয়াসহ আন্তর্জাতিক আহ্বান প্র’ত্যা’খ্যান করেছে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। রোববার থেকে দুই দেশের মধ্যে সং’ঘা’ত চলছে। টানা চারদিনে চলা সং’ঘা’তে ব্যা’পক হ’তাহ’তের খবর পাওয়া গেছে।

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন দেশগুলোর একটি সাম’রিক জোটের সদস্য রাশিয়া। যে জোটে আর্মেনিয়া রয়েছে এবং দেশটিতে একটি রুশ সাম’রিক ঘাঁ’টিও রয়েছে। অবশ্য আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া, উভয় দেশের কাছেই অ’স্ত্র সরবরাহ করে মস্কো। তবে যু’দ্ধবিরতির জন্য আন্তর্জাতিক চা’প অ’ব্যাহ’ত রয়েছে।

এর আগে সোমবার রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, ”আমরা সব পক্ষকে বিশেষ করে মিত্র দেশ তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি যু’দ্ধবিরতি ও সং’ঘা’তের শান্তিপূর্ণ সমা’ধানের রাজনৈতিক ও কূ’টনৈ’তিক উপায়ে স’ম্ভা’ব্য সবকিছু করার জন্য।”

নাগোরনো-কারাবাখকে আজারবাইজান নিজেদের বলে দাবি করে এলেও আর্মেনীয় নৃগো’ষ্ঠীর লোকজন অঞ্চলটি নি’য়’ন্ত্রণ করে আসছে, আর্মেনিয়া তাদের সমর্থন দিচ্ছে। ১৯৮৮-৯৪ সাল পর্যন্ত যু’দ্ধে অঞ্চলটি আজারবাইজান থেকে বি’চ্ছি’ন্ন হলেও স্বাধীন দেশ হিসেবে এখনও কারও স্বী’কৃতি পায়নি। কিন্তু এ অঞ্চলটি নিয়ে ১৯৯৪ সাল থেকে যু’দ্ধবিরতি পর বুধবার পর্যন্ত সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দেশ দুইটির মধ্যে টানা চতুর্থ দিন পর্যন্ত সং’ঘা’ত চলছে।

তুরস্ক ইতিমধ্যেই আজারবাইজানের পক্ষ নিয়েছে। একদিন আগেই আর্মেনিয়ার একটি জ’ঙ্গিবিমান ভূ’পা’তিত করারও অ’ভিযো’গ করা হয়েছে। যদিও তুরস্কের পক্ষ থেকে এ অ’ভিযো’গ অ’স্বী’কার করা হয়েছে। বুধবার চতুর্থ দিনে গড়ানো এ সং’ঘা’ত বেশিদিন চললে এতে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মিত্র দেশগুলোও জড়িয়ে পড়তে পারে বলে আ’শ’ঙ্কা করা হচ্ছে।

সূত্র : মস্কো টাইমস