মিন্নিকে সকালে খেতে দেওয়া হয় রুটি

বরগুনার বহুল আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হ’ত্যা মা’মলার ফাঁ’সির দ’ণ্ডাদেশ পাওয়া আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি কারাগা’রের কনডেমড সেল থেকে বাবা-মায়ের সঙ্গে গতকাল ফোন করেন। সকাল ১০টার সময় করা ফোনে কথা বলার সময় মিন্নি বেশ কান্নাকাটি করেন।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর জানান, ‘সকাল ১০টার দিকে মিন্নি আমাদের সঙ্গে কথা বলেছে। সে খুব কান্নাকাটি করেছে। মিন্নি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে। ষ’ড়য’ন্ত্র করে আমার মেয়েকে ফাঁ’সানো হয়েছে।’ বরগুনা জেলা কারাগা’রের কনডেমড সেলের একমাত্র নারী আসা’মি আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি।

জেলা কা’রাগারের জেল সুপার মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘কারাবিধি অনুযায়ী ছয় বন্দিকে কনডেমড সেলে রাখা হয়েছে। কারাগার থেকে প্রত্যেককে দুই সেট করে পোশাক দেওয়া হয়েছে। কনডেমড সেলের বন্দিরা সেল থেকে বের হতে পারেন না। তবে মাসে স্বজনদের সঙ্গে একবার দেখা করতে পারেন। সপ্তাহে একবার ফোনে স্বজনদের সঙ্গে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কথা বলতে পারেন।’

জেল সুপার আরও বলেন, ‘মিন্নিকে আজ সকালে রুটি খেতে দেওয়া হয়েছে। দুপুরের খাবার ছিল ভাত, সবজি ও ডাল। রাতে গরুর মাংস, ভাত ও ডাল দেওয়া হবে।’-নিউজ২৪।