আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের বিবাদ মেটাতে উদ্যোগী রাশিয়া

আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের মধ্যে সংঘ’র্ষ থামিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগে হচ্ছে রাশিয়া। রুশ বিদেশ মন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এই দুই দেশের বিদেশমন্ত্রীদের আহ্বান জানিয়েছেন শান্তি আলোচনার জন্য মস্কোয় আসতে। এজন্য সের্গেই দুই দেশের বিদেশ মন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন এবং এমন প্রস্তাব দেন।

গত রবিবার সকাল থেকে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে সীমান্ত সংঘ’র্ষে শতাধিক মানুষের মৃ’ত্যু হয়েছে। এই কথা জানিয়ে আপাতত যু’দ্ধ পরিহার করে শান্তি আলোচনায় বসতে বলা হয়েছে । তাছাড়া রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই দু’দেশের সংঘ’র্ষ নিয়ে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। তারা দুজনেই অবিলম্বে কারাবাখ অঞ্চলে যু’দ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠার জন্য আন্তর্জাতিক উদ্যোগের আহ্বান জানান।

এমনিতেই আর্মেনিয়ার সঙ্গে রাশিয়ার একটি সামরিক চুক্তি রয়েছে এবং দেশটিতে রুশ সেনা মোতায়েন রয়েছে। কিন্তু তা সত্বেও আজারবাইজানের সঙ্গেও ঘ’নিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রাখছে রাশিয়া। সংঘ’র্ষের কেন্দ্রবিন্দু নগরনো-কারাবাখ অঞ্চলটি আজারবাইজানের ভূখ’ণ্ডের অন্তর্গত হলেও সেখানকার বেশিরভাগ মানুষ জাতিগত ভাবে আর্মেনীয় এবং সেখানে স্থানীয়ভাবে একটি আর্মেনীয় সরকারের শাসন চলছে।

আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত এই অঞ্চলের জন্য যু’দ্ধ করেছে। আর্মেনিয়া সরকার ওই নগরনো-কারাবাখ অঞ্চলের স্বায়ত্বশাসনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে।