দ্বীন প্রতিষ্ঠায় প্রয়োজনে ১০টি শাপলা চত্বর কায়েম করতে হবে : বাবুনগরী

হেফাজত মহাসচিব, হাটহাজারী মাদরাসার শিক্ষা পরিচালক ও শায়খুল হাদীস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, মহান আল্লাহ যুগে যুগে তাঁর প্রিয় বান্দাদের মাধ্যমে ইসলাম ও মুসলমানদের ব্যাপক খেদমতের আঞ্জাম দিয়ে থাকেন। আল্লামা শাহ্ আহমদ শফির সাথে ২০১৩ সালের আগে থেকে ছিলাম। শাপলা চত্বরের সাথে ছিলাম। লংমার্চের সাথেও ছিলাম।

আল্লামা আহমদ শফির রুহের ডাক হল- প্রয়োজনে দ্বীন প্রতিষ্ঠা করার জন্য একটা নয় আরো ১০টি শাপলা চত্বর কায়েম করতে হবে। প্রয়োজনে লংমার্চ করতে হবে।কিন্তু বাতেলের সঙ্গে কোন আপোস করা যাবে না। গতকাল শুক্রবার (২ অক্টোবর) বিকালে হাটহাজারী ডাকবাংলো চত্বরে হাটহাজারী ওলামা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত আল্লামা শাহ্ আহমদ শফি (রহ.) এর জীবন, কর্ম ও অবদান শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওলামা পরিষদের সহ-সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ শফির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় হাটহাজারী মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা শেখ আহমদ, সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা মো. ইয়াহইয়া, পটিয়া মাদরাসার শায়খুল হাদীস আল্লামা আবু তাহের নদভী, নাজিরহাট বড় মাদরাসার পরিচালক আল্লামা মুফতী হাবিবুর রহমান কাসেমী, চারিয়া মাদরাসার পরিচালক মাওলানা আব্দুল্লাহ হারুন, মেখল মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মুফতী মুহাম্মাদ আলী কাসেমী ও বাথুয়া মাদরাসার মুহাদ্দিস আল্লামা জাফর আহমদ।

সূত্র: পূর্বকোণ।