ধ’র্ষণ, নারী নি’র্যাতন রোধে পর্দার বিকল্প নেই : বাবুনগরী

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে এক নারীকে বিব’স্ত্র করে বর্ব’রোচিত নির্যা’তন চালানোর ঘটনায় তীব্র নি’ন্দা ও প্রতি’বাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। অভিযুক্তদের গ্রে’ফতার করে দ্রুত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ শা’স্তি নিশ্চিত করার জোর দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার রাজধানীর বারডেম জেনারেল হসপিটাল থেকে সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে হেফাজত মহাসচিব বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে দেশে ধর্ষ’ণের ঘটনা উ’দ্বেগজনক মাত্রায় বেড়েছে। সংবাদপত্রের ভাষ্য অনুযায়ী নোয়াখালীর এ ঘটনা আইয়্যামে জাহিলিয়াতকেও হার মানিয়েছে।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, এ ঘটনার বিবরণ শুনে আমার হৃদয়ে র’ক্তক্ষরণ হচ্ছে। মানুষ কীভাবে এতটা হিং’স্র হতে পারে! বর্ব’রোচিত কায়দায় এভাবে কোনো মা-বোন নি’র্যাতনের শিকার হওয়ার পর চুপ করে ঘরে বসে থাকা যায় না।

হেফাজত মহাসচিব আরও বলেন, এ ঘটনায় এক মাস পার হয়ে গেলেও স্থানীয় আই’নশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী লম্পটদের বিরু’দ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি এটি বড়ই দুঃখজনক। অবহেলার এ দায় স্থানীয় প্রশাসন এড়াতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, পর্দা নারীর মৌলিক অধিকার। পর্দাতেই নারী সর্বাধিক নিরাপদ। নারীকে নিরাপদে রাখতে পারলে তখন ব্যক্তি, দেশ, জাতি ও সমাজ, সংসার সবকিছুই নিরাপদ। ধর্ষ’ণ, নারী নি’র্যাতন এসব রোধে পর্দা বাধ্যতামূলক করার বিকল্প নেই।

হুশিয়ারি উচ্চারণ করে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে নোয়াখালীর বর্ব’রোচিত এ ঘটনায় প্রকৃত দো’ষীদের গ্রে’ফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত না করলে এর প্রতি’বাদে গোটা দেশ উ’ত্তাল হয়ে উঠতে পারে।

সূত্র: যুগান্তর