ধোনির শিশুকন্যা জিভাকে ধর্ষণের হুমকি!

আইপিএলে পরপর কয়েকটি ম্যাচ জেতাতে না পারায় চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনির পাঁচ বছর বয়সী শিশুকন্যা জিভাকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হল! কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে ম্যাচে হারের পর ইনস্টাগ্রাম, টুইটারে এবং ফেসবুক পোস্টে ধোনিকে ওই হুমকি দেওয়া হয়েছে। স্পষ্ট লেখা হয়েছে, ‘তেরি বেটি জিভাকা রেপ করুঁ?’

বৃহস্পতিবার ওই হুমকির পর শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত ওই ঘটনায় কোনও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে খবর নেই। মধ্যপ্রাচ্যে আইপিএল খেলতে ব্যস্ত ধোনিও এ নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি। যেমন প্রতিক্রিয়া আসেনি তাঁর স্ত্রী সাক্ষীর তরফেও। ধোনি পরিবার পুলিশের দ্বারস্থ হচ্ছে কি না, তা-ও স্পষ্ট নয়। এ সব ক্ষেত্রে অবশ্য স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে পুলিশ তাদের সাইবার সেলের মারফত আইনি ব্যবস্থা নিতে পারে।

জিভার ‘অপরাধ’, কেকেআরের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে তাঁর বাবাকে পুরনো মেজাজে দেখা যায়নি। ‘ফিনিশার’ ধোনি ম্যাচ জিতিয়ে ফিরতে পারেননি। ধোনির পাশাপাশি রান তাড়া করতে ব্যর্থতার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দিত হচ্ছেন কেদার যাদবও। কিন্তু তাঁর পরিবার বা পরিজনদের জড়িয়ে কিছু বলা হয়নি। কিন্তু ধোনির ক্ষেত্রে যে হুমকি দেওয়া হয়েছে, তা দেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন। ধোনি দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে সেরা অধিনায়ক। তাঁর শত্রুর চেয়ে ভক্তের সংখ্যাই বেশি। ক্রিকেট মাঠে ব্যর্থতার জন্য তাঁর শিশুকন্যাকে যে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়েছে, তা এর আগে কখনও দেখা যায়নি।

বুধবার কেকেআরের বিরুদ্ধে ১৬৮ রানের জয়ের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১০ রানে হেরেছিল চেন্নাই। চার নম্বরে নেমে ১২ বলে ধোনি করেন ১১। কেদার ১২ বলে করেন ৭। হারের পর ওই দু’জনকে নিয়ে চলতে থাকে চর্চা। কিন্তু তা যে মাঠের পারফরম্যান্স ছাড়িয়ে ধোনির সন্তানের দিকে ধেয়ে যাবে, তা নেটাগরিকদের বড় অংশই ভাবতে পারেননি। এখন কথা হল, ওই হুমকি কারা দিল। চেন্নাইয়ের হয়ে ম্যাচ জেতাতে না-পারায় চেন্নাইয়েরই কোনও সমর্থক ওই হুমকির সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে।

কিন্তু পাশাপাশিই এই তথ্যও রয়েছে যে, চেন্নাই শহর এবং চেন্নাই টিমের ভক্তদের মধ্যে ধোনির আসন প্রশ্নাতীত। তাঁকে ভক্তিভরে ‘থালা’ বলে ডাকা হয়। তবে নেটাগরিকদের একাংশের বক্তব্য, ধোনিকে দেবতার আসনে বসিয়েছেন বলেই ভক্তদের রোষও এমন অভূতপূর্ব পথে চলেছে।

সূত্র: আনন্দবাজার।