৫০ দেশে শতাধিক ব্যক্তির অর্থপাচারের তথ্য চেয়েছে দুদক

বাংলাদেশে থেকে অর্থপাচার করেছেন এমন শতাধিক ব্যক্তির তথ্য চেয়ে আমেরিকা, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ ৫০টি দেশে চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক। এরইমধ্যে বেশ কয়েকজনের তথ্য হাতেও পেয়েছে দুদক। কিন্তু তদন্ত ও এমএলএআরের চুক্তির শর্ত অনুযায়ী ব্যক্তির নাম প্রকাশ করছে না সংস্থাটি।

অস্ট্রেলিয়া ও কানাডায় অন্তত ৪০ কোটি টাকা পাচার করেছেন স্বাস্থ্যের সাবেক হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল ও তার স্ত্রী রুবিনা। এরইমধ্যে তাদের কয়েকটি বাড়ি জব্দের জন্য সে দেশের সরকারের সহায়তা চেয়েছে দুদক। দুদেশের মধ্যে চুক্তির মাধ্যমে এসব তথ্য পেয়েছে দুদক।

শুধু আবজাল নয়, ক্যাসিনোকাণ্ডে জড়িত যুবলীগ নেতা সম্রাট, কাজী আনিস, সেলিম প্রধানসহ অন্তত ১০০ জনের আর্থিক লেনদেনের তথ্য খুঁজছে দুদক। সিঙ্গাপুরে সেলিম প্রধানের ৯টি প্রতিষ্ঠানের খোঁজ পাওয়া গেছে। আরো যাদের তথ্য পাওয়া গেছে সেটি প্রকাশ করবে না দুদক।

দুদকের কাছ থেকেও তথ্য চেয়েছে বিভিন্ন দেশ। যাদের অনেকের কাছ থেকে সহায়তা নিয়েছে সংস্থাটি। দুদক বলছে, এমএলএআরের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ ও অর্থ সম্পদ জব্দের রীতি চালু হওয়ায় বিদেশে পালিয়েও শেষ রক্ষা হচ্ছে না দুর্নীতিবাজদের।

সূত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট নিউজ