অকালেই মারা যান ধোনিকে হেলিকপ্টার শট শেখানো সেই সন্তোষ

নিঃসন্দেহে অন্যতম সফল ক্রিকেট অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। রান ছাড়াও তাঁর ব্যাটিং স্টাইল আমাদের সকলেরই নজর কেড়েছে। ধোনির মার মানেই হেলিকপ্টার শট। কিন্তু জানেন কি এই হেলিকপ্টার শট কিন্তু ধোনির নিজস্ব স্টাইল নয়। অন্য একজনের কাছ থেকে এই শট ধার নিয়েছিলেন তিনি। জানেন কি কে ধোনির হেলিকপ্টার শটের গুরু?

ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’-তে তাঁর ছেলেবেলার বন্ধু সন্তোষ লালের কথা অনেকেরই মনে রয়েছে নিশ্চয়। এই সন্তোষ লাল ছিল ধোনির প্রিয় বন্ধু। এমনকি, ধোনি স্টার ক্রিকেটার হয়ে যাওয়ার পরও বন্ধু সন্তোষের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল। ছোটবেলায় ধোনির ক্রিকেট পার্টনার ছিলেন এই সন্তোষ লালই।

একসময় ক্রিকেটের জন্যই একসঙ্গে রাজ্যে রাজ্যে ঘুরে বেড়াতেন তাঁরা। এই হেলিকপ্টার শট আসলে ছিল সন্তোষের সিগনেচার শট। তখন বন্ধুরা এর নাম দিয়েছিল থাপ্পড় শট। পরবর্তীকালে তাঁরা দুজনে একসঙ্গে রেলে চাকরিও পেয়েছিলেন। সন্তোষ ছিলেন সাহসী ব্যাটসম্যান। সন্তোষের ব্যাটিং স্টাইল ধোনির খুবই পছন্দ ছিল। দীর্ঘদিন ধরে অনুশীলন করিয়ে ধোনিকে এই হেলিকপ্টার শটে পোক্ত করে তুলেছিলেন সন্তোষ।

এরপর ধোনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সুযোগ পেয়ে যান। আর সন্তোষ ঝাড়খণ্ডের হয়ে রঞ্জি ট্রফি খেলতে শুরু করেন। সন্তোষের জন্ম ১৯৮৩ সালে রাঁচিতে। খুব বেশি দিন ধোনি-সন্তোষের বন্ধুত্ব স্থায়ী হয়নি। মাত্র ৩০ বছর বয়সে খুব কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয় সন্তোষকে। সন্তোষ প্যানক্রিয়েটাইটিসে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। সে সময় রাঁচিতেই চিকিত্সা চলছিল তাঁর।

বন্ধুর অসুখের কথা জানতে পেরে এগিয়ে এসেছিলেন ধোনি। রাঁচি থেকে দিল্লি নিয়ে গিয়ে বন্ধুর চিকিত্সার ব্যবস্থাও করেছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। ২০১৩ সালের জুলাইয়ে মাত্র ৩০ বছর বয়সে মৃত্যু হয় সন্তোষের।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।