স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত আজ

ফাইল ছবি

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে টানা ৭ মাস ধরে বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে চলতি বছরে বার্ষিক পরীক্ষা নেয়া হবে কি না, হলেও সেটা কোন পদ্ধতিতে হবে সে বিষয়ে আজ বুধবার (২১ অক্টোবর) সিদ্ধান্ত জানাবে সরকার। এদিন দুপুর ১২টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ডা. দীপু মনি এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সরকারি সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবেন।

মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। করোনাভাইরাসের মহামারি কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এই ছুটি থাকবে। এরপর আর ছুটি বাড়ানো হবে কিনা বলা যাচ্ছে না। তবে এই মুহূর্তে অনলাইন ও টেলিভিশনে ক্লাস নেয়া হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে এ বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি), ইবতেদায়ি সমাপনী (ইইসি), জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) এবং উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

এ বছর বিদ্যালয়গুলোতে বার্ষিক পরীক্ষাও না নেয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে। এর পরিবর্তে বিকল্প উপায়ে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করে পরবর্তী শ্রেণিতে উন্নীত করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। আর প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক স্তরের শিশুদের কোনো ধরনের পরীক্ষা ছাড়াই পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করার সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় গত ৭ অক্টোবর বাতিল ঘোষণা করা হয় এ বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। জেএসসি ও এসএসসির ফলাফলের গড়ের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে এবারের এইচএসসির ফল। ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ফল ঘোষণা করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ওই সময় বলেন, শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তায় সার্বিক বিবেচনায় ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা না নিয়ে ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করা হবে। যেভাবে গ্রহণযোগ্যতা পাবে, তা বিবেচনা করছি। এ পরীক্ষার জন্য ৩০ থেকে ৩২ দিন সময় দরকার হয়। এক বেঞ্চে একজন ছাত্রী সম্ভব নয়। এখন কেন্দ্র দ্বিগুণ করার জনবল নেই।